বই পড়া নিয়ে আলোচনায় বক্তারা : ভালো মানুষ হতে হলে বই পড়ার বিকল্প নেই

স্টাফ রিপোর্টার: বই কেন পড়ি? শিক্ষাগত বাধ্যবাধকতা, জীবিকান্বেষণ, জ্ঞান আহরণ, মানসিক প্রশান্তি, মনের দ্বার উন্মোচন, অভিজ্ঞতার ভান্ডার বৃদ্ধি, চিন্তার এক ভিন্ন জগতে প্রবেশ, ঘুমের অন্যতম অনুঘটক, মানসিক বোঝাপাড়া ইত্যাদি নানান করণে। পৃথিবীকে জানতে ও বুঝতে এবং ভালো মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে বইয়ের বিকল্প নেই।
আমরা কেন বই পড়ি? কেন পড়া উচিত তার মনস্তাত্বিক বিশ্লেষণ নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। গত শনিবার রাজশাহী বিভাগীয় সরকারি গ্রন্থাগার, রাজশাহীর আয়োজনে শিক্ষামূলক, তথ্যমূলক ও সাহিত্যমূলক পাক্ষিক, ‘বিশেষ লার্নিং সেশন-৩’ অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা করেন কবি, অনুবাদক, বেতার ব্যক্তিত্ব ও প্রফেশনাল সাইকোলজিস্ট ড. রুমি শাইলা শারমিন। তিনি পড়ার প্রকৃত কারণ ও প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে মনস্তাত্ত্বিক আলোচনা করেন।
মূলত: সেশনটি শিক্ষকদের জন্য আয়োজন করা হয়। পূর্ব থেকেই আমন্ত্রিত ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তথা শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজশাহী, শিমুল মেমোরিয়াল নর্থ সাউথ স্কুল এন্ড কলেজ, গ্রীনফিল্ড স্কুল ও সিটি আইডিয়াল স্কুল থেকে মোট ৪৭ জন শিক্ষক এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে স্বেচ্ছায় অংশগ্রহণকৃত আরো ২১ জন শিক্ষকসহ মোট ৬৮ জন শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও সর্বসাধারণ সহ সর্বমোট ১২০ জন উপস্থিত ছিলেন।
প্রথম পর্বে অংশগ্রহণকারীরা মূলত কী কারণে বই পড়েন তা জানান। পড়ার কারণ হিসেবে অধিকাংশ মতামত প্রদানকারীই মূলত শিক্ষাগত বাধ্যবাধকতা, জীবিকান্বেষণ, জ্ঞান আহরণ, মানসিক প্রশান্তি, মনের দ্বার উন্মোচন, অভিজ্ঞতার ভান্ডার বৃদ্ধি, চিন্তার এক ভিন্ন জগতে প্রবেশ, ঘুমের অন্যতম অনুঘটক, মানসিক বোঝাপাড়া ইত্যাদিকে তুলে ধরেন।
দ্বিতীয় পর্বে আলোচক পড়া সংক্রান্ত বিভিন্ন গবেষণা, তথ্য ও উপাত্ত এবং প্রাপ্ত পড়ার কারণগুলোকে সম্পৃক্ত করে পড়ার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। আলোচক তার আলোচনায় পড়াকে জীবনের অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে নেয়ার প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন যে, জ্ঞান আহরনের পাশাপাশি পড়াটা প্রশান্তিরও এক অন্যতম অনুঘটক। সর্বোপরি একজন ভালো মানুষ হবার জন্য বই এর কোন বিকল্প নেই বলে জানান। সভাপতিত্বে ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় সরকারি গ্রন্থাগারের সহকারি পরিচালক মাসুদ রানা।


প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২৩ | সময়: ৫:৫১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর