ভারতের বাজেটে বাংলাদেশের জন্য বরাদ্দ তিনশ কোটি রুপি

ঢাকা অফিস: ২০২২-২৩ সালের বাজেটে বাংলাদেশের জন্য তিনশ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। মঙ্গলবার দেশটির সংসদে কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। পেশ করা বাজেটে এই অর্থ বরাদ্ধের কথা জানান ভারতের অর্থমন্ত্রী। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই এবং এনডিটিভি’র এক খবরে এ তথ্য জানাগেছে। ভারতের বিজেপি সরকারের এই বাজেটে বাংলাদেশ-সহ প্রতিবেশী দেশগুলির জন্য আগের মতোই অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। গত বাজেটেও বাংলাদেশের জন্য একই অঙ্কের অর্থ বরাদ্দ ছিল। নির্মলা সীতারামন চতুর্থ বারের মতো পেশ করা বাজেটে চমক হল- তালেবান শাসিত আফগানিস্তানের জন্যও দুইশ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। মিয়ানমারে সেনাশাসনের পরেও তাদের জন্য ছয়শ কোটি টাকা বাজেটে বরাদ্দ করেছেন সীতারামন। অতীতে তালেবানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক খুব একটা মধুর ছিল না। এবারেও তালেবান আফগানিস্তান দখল করার পর তাদের সঙ্গে কূটনৈতিক স্তরে ভারতের খুব বেশি আলোচনা  মঙ্গলবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দাবি করেছেন, এই বাজেট গরিবের জন্য। আর বিরোধীরা বলছে, বাজেটে দেশের ১০ শতাংশ ধনীর স্বার্থ দেখা হয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন দাবি করেছেন, আর পঁচিশ বছর পর স্বাধীনতার একশ বছরে ভারতের চেহারা কী হবে, তা এই বাজেটে বলা হয়েছে। তার ব্যাখ্যা, ভারতের পরিচয় হবে গতি ও শক্তি। অন্যদিকে বিরোধীরা দাবি করছেন, বর্তমানে চাপে থাকা অর্থনীতির হাল ফেরাবার জন্য কোনো সুস্পষ্ট পদক্ষেপ সীতারামন নিতে পারেননি। কিছু চমক দিয়ে বাজেট তৈরি করেছেন। কিন্তু সেই চমকে বর্তমানের সমস্যা মিটবে না। নির্মলা সীতারামন অবশ্য দাবি করেছেন, তার এই বাজেটের ফলে কৃষক, যুবক, শিক্ষার্থী, দলিত, আদিবাসী, গরিবরা বিশেষ করে উপকৃত হবেন। কাজের সুযোগ অনেকটাই বাড়বে। আর আগামী বছর আর্থিক বৃদ্ধির হার হবে নয় দশমিক দুই শতাংশ। কিন্তু বিরোধীদের দবি, এ নেহাতই কথার কথা। আসলে সেই বড়লোকেদের স্বার্থ দেখেছেন নির্মলা। গরিবদের জন্য কিছুই করেননি।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১, ২০২২ | সময়: ৮:৪২ অপরাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর