সর্বশেষ সংবাদ :

পাঁচদিন পর মুহুরীর মাটিচাপা লাশ উদ্ধার : প্রেমিকা আটক

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি: বড়াইগ্রামে নিখোঁজের পাঁচদিন পর পরকীয়া প্রেমিকার বাড়ির আঙ্গিনায় শাহীন শাহ (৪০) নামে এক যুবকের মাটি চাপা দেয়া লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকালে উপজেলার জলন্দা গ্রামের ওই বাড়িতে ১০ ফুট গভীর গর্ত খুঁড়ে লাশটি উত্তোলন করা হয়। পরকীয়া প্রেমের জেরে মোবাইল করে বাড়িতে ডেকে এনে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
নিহত শাহীন শাহ নাটোর সদর উপজেলার দস্তানাবাদ গ্রামের মোজাহার আলী শাহর ছেলে। তিনি নাটোর কোর্টে উকিলের মুহুরী হিসাবে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় পুলিশ পরকীয়া প্রেমিকা জলন্দা গ্রামের কুয়েত প্রবাসী আইয়ুব আলীর স্ত্রী হুসনেয়ারা খাতুনকে (৩২) আটক করেছে।
স্থানীয়রা জানান, মামলা সুত্রে আদালতে যাতায়াতের এক পর্যায়ে হুসনেয়ারার ভাই আব্দুল মান্নানের সঙ্গে শাহীন শাহ্র সুসম্পর্ক গড়ে উঠে। সে সুবাদে মান্নানের বাড়িতে যাতায়াতের এক পর্যায়ে হুসনেয়ারা খাতুনের সাথে শাহীনের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।
নিহত শাহীনের ভাই ফিরোজ শাহ জানান, গত সোমবার সন্ধ্যা থেকে শাহীন নিখোঁজ ছিলেন। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেও তাকে না পেয়ে মঙ্গলবার তারা নাটোর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী এবং নাটোর র‌্যাব ক্যাম্পে লিখিত অভিযোগ করেন। পরে মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে তার সর্বশেষ অবস্থান নিশ্চিত হয়ে র‌্যাব ও পুলিশের যৌথ টিম জলন্দা গ্রামে অভিযান চালায়।
এ সময় হুসনেয়ারা খাতুনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তার তথ্যের ভিত্তিতে বাড়ির উঠানে টিউবওয়েলের গোড়ায় গর্ত খুঁড়ে শাহীনের মুখ, হাত ও পা বাঁধা এবং গলায় দড়ি লাগানো লাশ উত্তোলন করে পুলিশ।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক প্রতিবেশী জানান, গত রোববার দিন হুসনেয়ারার বাড়িতে দুজন দিনমজুর নিয়ে টিউবওয়েলের গোড়ায় গর্ত খোঁড়া হয়। এ সময় তারা টিউবওয়েলের পাইপ নষ্ট হয়েছে, মিস্ত্রি ডেকে মেরামতের জন্য গর্ত খুঁড়ছেন বলে জানান। সে গর্তেই শাহীন শাহর লাশ পাওয়া গেছে বলে তারা জানান।
এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সিদ্দিক জানান, পরকীয়া প্রেমের জের ধরেই এ হত্যাকান্ড ঘটেছে বলেই জানা যাচ্ছে। এ ঘটনায় হুসনেয়ারা খাতুন নামে এক মহিলাকে আটক করা হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।


প্রকাশিত: আগস্ট ১২, ২০২৩ | সময়: ৫:৪৭ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর