বিধবার বসতবাড়ি ভাঙচুর, দখলচেষ্টা

মান্দা প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিবন্ধী এক বিধবার বসতবাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। এসময় বসতবাড়ির চারদিকে বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে দখলের চেষ্টা করে প্রতিপক্ষের ভাড়াটিয়া বাহিনি।
সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাঁশের বেড়াটি অপসারণ সহ অবরুদ্ধ পরিবারটিকে মুক্ত করে পুলিশ। সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার গশেনপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর মধ্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
ভুক্তভোগী নারীর নাম ছামেনা বেগম (৭০)। তিনি শারীরিক প্রতিবন্ধী। ছেলে সায়েদ আলী পেয়াদা, পুত্রবধূ ও তাদের সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তিনি ওই বাড়িতে বসবাস করছেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর-এ আলম সিদ্দিকী বলেন, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এসময় প্রতিপক্ষের লোকজনের দেওয়া বাঁশের বেড়া সরিয়ে দেয় পুলিশ। ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি।
ভুক্তভোগীর ছেলে সায়েদ আলী জানান, ‘বসতভিটার জমি নিয়ে প্রতিপক্ষের মোখলেছুর রহমান গংদের সঙ্গে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে একাধিকবার বৈঠক হলেও কাগজপত্র সঠিক থাকায় বারবার আমার অনুকুলে রায় আসে। সোমবার আবারও বৈঠকের দিন ছিল। কিন্তু মাতব্বরদের অসুবিধার কারণে দিনটি পরিবর্তন করা হয়।’
সায়েদ আলী অভিযোগ করে বলেন, বৈঠক না হলেও বেলা ১১টার দিকে প্রতিপক্ষের মোখলেছুর রহমানের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন ভাড়াটিয়া লোকজন দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আমার বসতবাড়িতে হামলা চালায়।
হামলাকারীরা শোবার ঘরের দরজা ভেঙে ভেতর থেকে সব আসবাবপত্র বাইরে ফেলে দিয়ে ভাঙচুর করে। এসময় বাড়ির সামনের অংশ বাঁশের বেড়া দিয়ে দখল করে নেয় প্রতিপক্ষরা।
এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত মোখলেছুর রহমান বলেন, ‘ওই সম্পত্তিতে আমাদের অংশ রয়েছে। তাই লোকজন দিয়ে সেখানে দখল করা হয়েছে।’


প্রকাশিত: জুন ৬, ২০২৩ | সময়: ৫:৪৪ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ

আরও খবর