সর্বশেষ সংবাদ :

সন্তানের হাতে লাঞ্চিত হয়ে পিতার আত্নহত্যা !

স্টাফ রিপোর্টার,বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্যকে কেন্দ্র করে স্বামী তার স্ত্রীকে মারপিট করায় নিজ সন্তানের হাতে লাঞ্চিত হয়ে বিষপানে আত্নহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন আব্দুল হক নামে এক পিতা ।

গত ১০ রমজান বিকেলে তিনি বিষপানে আত্নহত্যার চেষ্টা করলে স্থানীয় লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসেন।এরপর দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক তাঁকে রামেক হাসপাতালে রেফার্ট করলে ঈদের দিন সকালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

আব্দুল হকের সন্তান তাঁর পিতাকে রাগের মাথায় লাঞ্চিত করার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বাবা এমনটি করে বসবে এটা কখনো ভাবিনি। ঈদের তিনদিন পূর্বে রামেক হাসপাতালের ডাক্তার বাবাকে সুস্থ্য করে তুললে নিজগ্রাম উপজেলার কলিকগ্রাম এলাকার বাড়িতে নিয়ে আসি । অত:পর ঈদের দিন সকালে বাবা মারা যান।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ রমজান উপজেলার কলিগ্রাম এলাকার রমজীদ আলী তুচ্ছ ঘটনাতক কেন্দ্র করে তার স্ত্রীকে বেধড়ক মারপিট করে। কিছুক্ষন পর তার ছেলে তুফান(১৪)বাড়ি এসে ঘটনা শোনার পর তার বাবাকে লাঞ্চিত করেন। এর কিছুক্ষন পর তার বাড়া লজ্জা ও ঘৃনায় সকলের চোক ফাঁকি দিয়ে জমির আগাছা পরিস্কার করা বিষপান করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন পরিবারের লোকজন সহ স্থানীয় গ্রাম বাসীরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসেন। এরপর কর্তবরত চিকিৎস সাময়িক ভাবে বিষ তুলে তাকে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার জন্য রামেক হাসপাতালে রেফার্ট করেন।

এদিকে ঘটনার প্রায় ১৮ দিন পর সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকগন আব্দুল হক(৩৮)কে ছাড়পত্র দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেন।অত:পর ঈদের দিন সকালে তিনি নিজ বাড়িতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তার এই মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছাঁয়া নেমে আসে।গ্রাম বাসীরা তাকে ঐ এলাকার গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন করেন।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সাজ্জাদ হোসেন জানান, যতটুকু শুনেছি, এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ না করায় রাজপাড়া থানায় একটি ইউডি মামলা রজু করে লাশ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে।


প্রকাশিত: মে ৫, ২০২২ | সময়: ৪:৩২ অপরাহ্ণ | আসাদুল্লাহ গালিব