সর্বশেষ সংবাদ :

সাবেক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগ

প্রেমতলী প্রতিনিধি: রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার ২নং মোহনপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তফা হোসেন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রকল্পের কাজ না করে অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। প্রকল্পের কাজ না করে অর্থ আত্মসাত, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে রাজশাহী জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মোহনপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার মাহাতাব আলীসহ বর্তমান ও সাবেক কয়েকজন মেম্বার।
বৃহস্পতিবার দায়েরকৃত অভিযোগে বলা হয় চেয়ারম্যান মোস্তফা হোসেন একই প্রকল্পকে বার বার ব্যবহার করে নিয়ম বহির্ভুত ভাবে বরাদ্ধ প্রদান ও কোন কোন প্রকল্পের কাজ না করে অর্থ আত্মসাত করেছেন।
দুটি প্রকল্পে কোন কাজ না করেই ২০১৯-২০ অর্থ বছরে টিয়ার প্রকল্প হতে ২ নং ওয়ার্ডের চান্দলাই পাইকড় তলা মোড় ও ৫ নং ওয়ার্ডের পালসা সাইফুলের মোড়ে গোল চক্কর করে টাইলস লাগানোর জন্য ৪০ হাজার টাকা করে ৮০ হাজার টাকা বরাদ্ধ নিলেও কোন টাইলস না লাগিয়ে সম্পূর্ণ অর্থ আত্মসাত করিয়াছে।
এছাড়াও ২০২১-২২ অর্থ বছরে এমপি মহোদয়ের বিশেষ বরাদ্ধ হতে মাটির কাজের জন্য ২ নং ওয়ার্ডের বৈরাগী আমতলা হতে দুধাই পর্য়ন্ত রাস্তার জন্য ৪ লক্ষ টাকা ও চান্দলাই হযরতের বাড়ি হতে সাগুনা খাড়ি পর্য়ন্ত রাস্তার কাজের জন্য ৪ লক্ষ টাকা দুটি প্রকল্পে মোট ৮ লক্ষ টাকার প্রকল্প চেয়ারম্যান হিসাবে চেয়ারম্যান মোস্তফা হোসেন আংশিক কাজ করে বরাদ্ধকৃত অর্থ আত্মসাত করেছেন।
একই অর্থ বছরে বরাদ্ধকৃত তিটি প্রকল্পের অনুকুলে প্রায় ৬ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা কোন কাজ না করে সম্পূর্ণ প্রকল্পের অর্থ আগেই উত্তোলন করিয়া আত্মসাত করেছেন।
এমনকি ৬ নং ওয়ার্ডে পিআসির মাধ্যমে মিরপুর আব্দুল বারির বাড়ি হতে জিল্লার হাজীর বাড়ি এবং দিগগ্রাম সাহালাল পুকুর পাড়ে ব্যাডস দিয়ে রাস্তা সংস্কার প্রকল্পের কাজ না করে ২ লক্ষ টাকা আত্মসাত করেছে বলে লিখিত অভিযোগে বলা হয়।
এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তফা হোসেনের বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা মিথ্যা। আমি কোন অনিয়ম ও দুর্নীতি করিনি। প্রকল্পের কাজের সরজমিন তদন্ত করলে প্রমান পাওয়া যাবে।


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২২ | সময়: ৬:৪৩ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ