Daily Sunshine

করোনাকালের বন্ধু নবীণ চিকিৎসক আতিক

Share

মিজানুর রহমান, চারঘাট: নেই কোনো ভ্যাকসিন কিংবা কার্যকরী ওষুধ। তবুও কোভিড-১৯ নামের অদৃশ্য এক প্রাণঘাতী ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে গোটা পৃথিবী। এ ভাইরাসে বহু মানুষের প্রাণহানি যেমন শঙ্কা বাড়িয়েছে, তেমনি কিছু মানুষের সুস্থ হয়ে ওঠার গল্প আশা জাগিয়ে রেখেছে মনে।

জীবন বাজি রেখে দৃঢ় মনোবল নিয়ে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ফ্রন্টলাইনে থেকে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশের চিকিৎসকরা। কিন্তু অনেক চিকিৎসক চিকিৎসা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হচ্ছেন। তারপরও শেষ ভরসা চিকিৎসক।

স্থানীয়রা জানান, করেনা ভাইরাসে যখন সাধারণ মানুষের পাশাপাশি চিকিৎসকরা আক্রান্ত হচ্ছেন তখন মনের মাঝে প্রবল শক্তি জোগান দিয়ে পূর্ব-অভিজ্ঞতা না থাকলেও করোনাভাইরাসের এ দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে নিরলস সেবা দিয়ে যাচ্ছেন রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকরা। তবে তাদের মধ্যে করোনা কালের বন্ধু হয়ে সবসময় রোগিদের পাশে দাঁড়িয়ে আছেন নবীণ চিকিৎসক ডা. আতিকুল হক।

পরিবারের সদস্যদের মায়া ত্যাগ করে রাত-দিন তারা কাজ করছেন দেশের জন্য, মানবতার জন্য। তাকে নিয়ে পরিবারের সদস্যদের মনে যতটা না ভয় কাজ করে, তারচেয়ে বেশি গর্ব বোধ করেন তারাসহ এলাকাবাসী। কারন ডা. আতিকুল হকের জন্ম, বেড়ে উঠা, লেখা পড়া সবকিছুই চারঘাটের মাটিতে।

মার্চ মাসের শেষ দিকে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে হাসপাতালের কোয়ার্টারে থেকে রাত দিন সমান করে কাজ করে যাচ্ছেন ডা. আতিকুল হক। তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) ৩৯তম ব্যাচের স্বাস্থ্য ক্যাডারের কর্মকর্তা।
ডা. আতিক চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন সেন্টারে দায়িত্ব পালন করছেন। ২৬ মার্চ থেকে অদ্যবধি আইসোলেশন সেন্টারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের দেখভাল করেছেন তিনি। পাশাপাশি প্রশাসনিক কিছু কাজও করতে হচ্ছে তাকে।

রোগীদের সঙ্গে সেখাইে তাদের খাওয়া-ঘুম সবকিছু। এছাড়াও গত রমজানের ঈদও কেটেছে তার হাসপাতালের কোয়ার্টারে। আইসোলন সেন্টারসহ হোম কোয়ারেনটাইনে থাকা রোগীদের সঙ্গে। r

হাসপাতাল থেকে মাত্র ২০ মিনিটির রাস্তা পার হলেই ডা. আতিকুল হকের নিজ বাড়ী শিমুলিয়া গ্রাম। সেখানে রয়েছেন বাবা, মা ভাই বোনসহ আত্মীয় স্বজন। তার পরও শুধু সেবার কাজে নিয়োজিত থাকায় বাড়ীতে যেতে চাননি তিনি। এমন একজন চিকিৎসকের দায়িত্ব পালনে গর্ব বোধ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফকরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, চারঘাটের সন্তান হয়েও নিজ বাড়ীতে না গিয়ে হাসপাদালের কোয়ার্টারে থেকে প্রাণঘাতি করেনা যুদ্ধে অবিচল পরিশ্রম করে যাচ্ছেণ নবীণ চিকিৎসক আতিক। এতে অন্য চিকিৎসরাও উৎসাহিত হবেন বলে আশা করেন তিনি।

চিকিৎসক আতিক বলেন, আমার পেশাটি হচ্ছে সেবার পেশা। তারপরও আমি চারঘাটের সন্তান। তাই আমি চাই চারঘাটের মানুষের সেবা করার জন্য জীবন বাজি রেখে দায়িত্ব পালন করতে। বাবা মায়ের সঙ্গে একসঙ্গে বসে খেতে ইচ্ছা থাকলেও পারিনি মানুষের সেবার কাজে থাকতে। আমি চাই আগে মানুষের সেবা করতে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা সামিরা বলেন, চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল চিকিৎসকই যথাযথ ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তবে এদের মধ্যে নবীণ চিকিৎসক হিসেবে ডা. আতিক যেভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তাতে চারঘাটের মানুষকে তিনি কৃতজ্ঞতা পাশে আবদ্ধ করেছেন।

সানশাইন/২৫ জুন/এমওআর

জুন ২৫
২০:৫৮ ২০২০

আরও খবর

পত্রিকায় যেমন

বিশেষ সংবাদ

লো প্রোফাইলে থাকা হাই প্রোফাইল এক শিল্পী

লো প্রোফাইলে থাকা হাই প্রোফাইল এক শিল্পী

সানশাইন ডেস্ক : গান নিয়েই ছিল তাঁর যত ব্যস্ততা। একটা নতুন গান করার জন্য উদগ্রীব থাকতেন। প্রচারণার জন্য কারও সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষা নয়, গান করাটাকেই বড় কাজ বলে মানতেন তিনি। বিশ্বাস করতেন, শেষ পর্যন্ত তাঁর কণ্ঠটাকেই মনে রাখবে মানুষ। তাঁর গায়কিই মানুষকে বাধ্য করবে তাঁর কাছে ছুটে আসতে। নিজের ওপর,

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৩৮তম বিসিএসে সুপারিশ পেলেন ২২০৪ জন

৩৮তম বিসিএসে সুপারিশ পেলেন ২২০৪ জন

সানশাইন ডেস্ক : ৩৮তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল আজ মঙ্গলবার প্রকাশ করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এই বিসিএসে ২ হাজার ২০৪ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করেছে পিএসসি। ফলাফল পিএসসির ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে ফলপ্রত্যাশীদের অপেক্ষার পালা শেষ হলো। পিএসসি সূত্র জানায়, আজ বিকেলে বিশেষ সভা শেষে পিএসসি ৩৮তম বিসিএসের চূড়ান্ত

বিস্তারিত