Daily Sunshine

শীতের আমেজে আহা…ভাপা পিঠা

Share

রোজিনা সুলতানা রোজি : প্রকৃতিতে এখন হালকা শীতের আমেজ। এই নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়ায় ভাপা পিঠার স্বাদ নিচ্ছেন সবাই। আর এই উপলক্ষ্যটা কাজে লাগচ্ছেন অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। লোকসমাগম ঘটে এমন মোড়ে ভাপা পিঠার পসরা সাজিয়ে বসে পড়ছেন অনেকেই। ভাসমান এই সকল দোকানে মৃদু কুয়াশাচ্ছন্ন সন্ধ্যায় ভিড় জমাচ্ছেন অনেক পিঠা প্রেমী।

রাজশাহীর বিভিন্ন মোড়ে শীতের আমেজের সাথে ভাপা পিঠা তৈরীর হিড়িক পড়েছে। কেউ বাড়তি আয়ের জন্য তো কেউ আবার শুধু জীবিকার তাগিদে। কেউ প্রস্তুতি নিয়েছেন তো কেউ শুরুই করে দিয়েছেন। বিকেল থেকে সন্ধ্যা; এমনকি অনেক রাত পর্যন্ত চলে এই পিঠা তৈরী এবং বিক্রির কাজ। সংসারের হাল সামলাতে পুরুষের পাশাপাশি অনেক নারীই এগিয়ে এসেছেন মৌসুমী এই পিঠা বিক্রির ক্ষুদ্র ব্যবসায়। তাদের মতোই একজন মাজেদা বেগম। ৩৫ বছর বয়সী এই নারী সংসারের উত্তাল ঢেউ সামাল দিতে বাসা-বাড়িতে কাজের পাশাপাশি বেছে নিয়েছেন মৌসুমী ভাপা পিঠার ভাসমান ক্ষুদ্র ব্যবসা। মাজেদা জানান, তার বাবার বাড়ি রাজশাহীর মোহনপুর থানাধীন হাটরা ইউনিয়নের রতনডাঙ্গা গ্রামে।

ছোটবেলায় সংসারের অভাব আর নারীশিক্ষায় অনিহার কারণে পড়ালেখার সুযোগ হয়নি তার। অল্প বয়সেই বিয়ে দেওয়া হয়েছে তাকে। পাত্র রাজশাহীর তানোর উপজেলার কামারগাঁ গ্রামের গোলাম কাদের। ভালোই চলছিলো তাদের সংসার। সংসারে বাড়ে সদস্যের সংখ্যা। জন্ম নেয় দুই মেয়ে এবং এক ছেলে। ফলে সংসারে ঝড়ের মতোই নেমে আসে অভাব।

সংসার খরচের বোঝা বইতে চোখে হাজারো স্বপ্ন নিয়ে ছেলে, মেয়ে, স্বামীসহ চলে আসেন রাজশাহীর নগরীর উপশহর ঈদগাহ মাঠ এলাকায়। সেখানে একটি টিনসেড বাড়ি ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন। স্বামীর দিনমজুরীর টাকায় গরুর গাড়ির মতো ধীর গতিতে চলছিলো সংসার। এভাবেই সংগ্রাম করে বিয়ে দিয়েছেন দুই মেয়েকে।

এরই মাঝে কপাল পোড়ে মাজেদার। তার রঙিন স্বপ্নগুলো ভেঙে তাকে ছেড়ে চলে যায় স্বামী। অন্যত্র বিয়ে করেন তিনি। মাজেদা দুরে থাক ছেলে-মেয়ের খোঁজ পর্যন্ত রাখেননি। দিশা হারিয়ে ফেলেন মাজেদা। কি করবেন, কোথায় যাবেন? কিছুই ভাবতে পারছিলেন না। পাহাড় সমান দুঃখের ঝড়ে এলোমেলো হয়ে যায় তার চোখের হাজারো স্বপ্ন। সংসারের নামের সাগরের উত্তাল ঢেউ তো আর উপেক্ষা করা যায়না। সংগ্রামের কষাঘাতে জীবনের কাছে হেরে যেতে চাইছিলেন; কিন্তু মেয়ে-জামাই ও ছেলের মুখের দিকে তাকিয়ে তা আর হয়ে উঠেনি।

পরে বাসাবাড়িতে কাজ খুঁজে নেয় মাজেদা। ছেলেকে বিদ্যালয়ে ভর্তি করেন। এভাবেই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে চলছে মাজেদার জীবন। সংসারের চাকা সচল রাখতে বাসাবাড়িতে কাজের পাশাপাশি তিন বছর ধরে মৌসুমী ভাপা পিঠার ব্যবসা করে আসছেন তিনি। তার মতো অনেক নারীকেই দেখা যায়, এই পিঠার পসরা সাজিয়ে বিক্রি করতে।

সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের বিভিন্ন জায়গায় লোকসমাগম হয় এমন একশো’টির বেশি মোড়ে চলছে এই ভাপা পিঠা বিক্রি। কেউ মাটিতে চুলা তৈরী করে তো আবার কেউ ভ্যানে ঘুরে ঘুরে পিঠা বিক্রি করছেন। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে ও তাদের বসার সুবিধার্থে টুল, বেঞ্চ পেতে রেখেছেন দোকানিরা।

প্রতিটি পিঠা পাঁচ টাকা দরে বিক্রি করছেন এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। গুড়, নারিকেল এবং চালের গুড়োর মিশ্রণে সেদ্ধ পানির ধোঁয়া উড়ানো ভাপে তৈরী পিঠাগুলো যেমন সুস্বাদু, তেমন মজাদার! এমন পিঠার সুঘ্রাণে পথচারিরাও লোভ সামলাতে না পেরে বসে পড়েন পিঠা খেতে। কেউ কেউ আবার পরিবার-পরিজনদের জন্যেও নিয়ে যাচ্ছেন গরম ধোঁয়া ছড়ানো ভাপের এই লোভনীয় পিঠা। সন্ধ্যায় দোকানগুলো মুখরিত থাকে ভাপা পিঠাপ্রেমীদের আনাগোনায়।

সানশাইন/২৩ নভেম্বর/এমওআর

 

নভেম্বর ২৩
১৩:১৪ ২০২০

আরও খবর

বিশেষ সংবাদ

কবর খুঁড়তেই দেখা গেল আরবি হরফের ছাপ!

কবর খুঁড়তেই দেখা গেল আরবি হরফের ছাপ!

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, এক মৃত ব্যক্তির কবর খোরার সময় আরবি অক্ষর লেখা বের হয়েছে কবরে দুই পাশের মাটিতে। কবরের দুই পাঁজরের পাশে বিসমিল্লাহ, সুরা ইয়াছিন অক্ষরের কিছু অংশ এবং পূর্ব পাশে রয়েছে মীম হা মীম দাল (মোহাম্মদ) নাম। বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টায় এই অলৌকিক ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

৪১ও ৪২তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

৪১ও ৪২তম বিসিএস পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা

সানশাইন ডেস্ক : ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি এবং ৪২তম বিশেষ বিসিএসের এমসিকিউ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। আগামী ১৯ মার্চ সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ৪১তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে একযোগে হবে। তার আগে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৩টা

বিস্তারিত