Daily Sunshine

‘আমি সংলাপের কথা উচ্চারণই করিনি’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংলাপ নিয়ে ধূম্রজালের কথা বলা হচ্ছে। সংলাপ নিয়ে তো আমরা কিছু বলিনি। এখন কেউ যদি মনগড়া সংবাদ পরিবেশন করেন কি করার আছে। আমার সব বক্তব্যের অডিও, ভিডিও রেকর্ড রয়েছে। আমি কখনো বলিনি সংলাপ হবে। আমার বক্তব্যে সংলাপের কোনো বিষয় নেই।

নির্বাচন নিয়ে সংলাপ হাস্যকর মন্তব্য করে সরকারের এই সেতুমন্ত্রী বলেন, সংলাপ শব্দটিই আমি উচ্চারণ করিনি। এখানে সংলাপের বিষয় এলো কোথা থেকে। আর নির্বাচন নিয়ে সংলাপ কেনো করতে যাব। যেখানে সারা গণতান্ত্রিক বিশ্বের নেতারা নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার জন্য অভিনন্দন জানাচ্ছেন, সেখানে সংলাপ কেনো হবে।’

তবে নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা জানানোর জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় ধানমন্ডি হোয়াইট হল কনভেনশন সেন্টারে ১৯ জানুয়ারি একাদশ সংসদ নির্বাচনের বিজয় সমাবেশ উপলক্ষে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান, সংসদ সদস্য আসলামুল হক, ডিএনসিসি’র ভারপ্রাপ্ত মেয়র জামাল মোস্তফা প্রমুখ।

কাদের বলেন, ‘আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্ট, বিএনপি, যুক্তফ্রন্ট, বামদল, জাতীয় পার্টি, ইসলামী দলসহ ৭৫টি দলের সঙ্গে বিভিন্ন পর্যায়ে সংলাপ করেছেন। সেই দলগুলোকে বা দলের নেতাদের তিনি গণভবনে আমন্ত্রণ জানাতে চান শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য। আমন্ত্রণ জানানোর অর্থ সংলাপ নয়। আর নির্বাচন নিয়ে সংলাপের প্রয়োজনও নেই। এনিয়ে ধূম্রজাল কেনো হবে?’

তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচন দেশে-বিদেশে আন্তর্জাতিকভাবে সমাদৃত হয়েছে, প্রশংসিত হচ্ছে। গণতান্ত্রিক বিশ্ব, জাতিসংঘ পর্যন্ত স্টেটমেন্ট দিয়েছে যে এই সরকারের সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত। তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, চীনসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশ, মুসলিম বিশ্ব এই নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার জন্য আমাদের দল ও নেত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। কাজেই নির্বাচন নিয়ে সংলাপ- এটা হাস্যকর বিষয়। প্রধানমন্ত্রী একবারও সংলাপের কথা বলেননি।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ বলেন, ‘মহাবিজয়ে মহাদাপট দেখাচ্ছে এটা যেন না হয়। এবার বড় বিজয়ে বড় ধৈর্য ধরতে হবে। আমাদের সহিষ্ণুতা প্রদর্শন করতে হবে। বড় বিজয়ে বড় দায়িত্ব হিসেবে জনগণের প্রতি, দেশের প্রতি এ দায়িত্ব আমাদের পালন করতেই হবে।’

সানশাইন অনলাইন/এন এ

জানুয়ারি ১৫
১৬:১৩ ২০১৯

আরও খবর