সর্বশেষ সংবাদ :

বাঘায় শীতার্ত মানুষের জন্য গভীর রাতে ইউএনওর ভালোবাসা

নুরুজ্জামান,বাঘা : শীতের জন্য রাতে ভালো ঘুম আসেনা। মনে হইছিল এই শীতে বোধায় আর বাচুম না। কম্বল পাইয়া শীতের ডর কাইট্যা গেছে। আমাদের উপজেলা নির্বাহী ম্যাডামের মাধ্যমে কম্বল পেয়ে এমনটি অভিমত ব্যক্ত করেন বাঘার চরাঞ্চল থেকে উঠে আসা মনিগ্রাম গুচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা হতদরিদ্র রহিমা বেগম।

তথ্য মতে, প্রতি বছর শীত মৌসুমে কনকনে শীতে কাঁপে রাজশাহী অঞ্চলের মানুষ। শীতার্ত মানুষকে একটু উষ্ণতা দিতে সুহৃদয় অনেক মানুষও এগিয়ে আসেন শীতবস্ত্র বিতরণে। এই বিতরণ গুলো হয় সাধারনত মাঠ পর্যায়ে দলীয় নেতা-কর্মী , জনপ্রতিনিধি কিংবা নিকটতম লোকদের মাধ্যমে। এতে পাওয়ার আনান্দে উল্লাশিত হন অনেকে। আবার অনেকেই না পাওয়া থেকে কষ্টবোধ করেন। তাই রাতের আধারে সমাজের অসহায় মানুষ এবং প্রকৃত গরিব দু:খিদের মাঝে নিজ হাতে কম্বল বিতরণে নেমেছেন বাঘা উপজেলা সু-যোগ্য নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা। তিনি সর্ব শেষ বৃহস্পতিবার রাতে মনিগ্রাম এলাকায় অবস্থিত গুচ্ছ গ্রামের হত দরিদ্রদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

এদিকে নির্বাহী অফিসারের হাত দিয়ে রাত্রী কালিন সময়ে সরাসরি শীতবস্ত্র হিসাবে কম্বর পেয়ে গুচ্ছ গ্রাম বাসীরা সবাই খুশিতে অপ্লুত হন এবং ইউএনও ম্যাডামের প্রতি থন্যবাদ জানানো সহ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। ঐ গ্রামের বাসীন্দারা জানান, এর আগেও এখানে অনেক ইউএনও চাকরি করে গেছেন। কিন্তু এই ম্যাডামের মতো রাত্রী কালিন সময়ে এসে কেউ কোনদিন কম্বল দিয়ে যাননি।

এর আগে উপজেলার সরের হাট কল্যনী শিশু সদনের এতিম শিশু এবং বৃদ্ধাদের মাঝে তিনি উপজেলার সকল অফিসারকে সাথে করে এক সন্ধ্যা(দুপুর)বেলা খাবার দেয়া সহ কম্বর বিতরণ করেন এবং বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা আনসার-ভিডিপি সদস্যদের মাঝে নির্বাহী কর্মকর্তা একটি করে শীত বস্ত্র হিসাবে চাদর বিতরণ করেন।

বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা বলেন , কোভিড-১৯-এর কারণে মানবেতর জীবন যাপন করছে সমাজের অসহায় ও সম্বলহীন মানুষ। বিশেষ করে দিন এনে দিন খাওয়া মানুষ, তাঁরা পড়েছেন বড় রকমের বিপাকে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, পরিবহন শ্রমিক, নির্মাণ শ্রমিক,ডে লেভার-এ রকম মানুষের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে প্রায়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এসব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং সমাজের বৃত্তবানদের নিজ-নিজ অবস্থান থেকে দাড়ানোর নির্দেশনা দিয়েছেন । এ দিক থেকে জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি, সমাজের বিত্তবান ও সামাজিক সংগঠন গুলো সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসেছেন। তারই ধারা বাহিকতায় আমার পক্ষ থেকে যত সামান্য শীতবস্ত্র আমি অসহায় মানুষদের দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।


প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২২ | সময়: ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ | Daily Sunshine