Daily Sunshine

সান্তাহারে প্লাস্টিক কারখানায় অগ্নিদগ্ধে পুড়ে যাওয়া পাঁচ শ্রমিকের মরদেহ পরিবারে হস্তান্তর

Share

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার আদমদীঘিতে বিআইআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে আগুনে ভস্মীভূত হয়ে ৫ শ্রমিকের মরদেহ পরিবারে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায়

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন তাদের পরিবারে মরদেহ হস্তান্তর করেন। নিহতরা হলেন, উপজেলার কমল দোগাছীর এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে সিহাব হোসেন (১৪), পালোয়ান পাড়া এলাকার হাসান আলীর ছেলে ইমন আলী মন্ডল (১৫), ঘোরাঘাট এলাকার মৃত আফছার উদ্দীনের ছেলে আব্দুল খালেক (৫০), ছাতনী ঢেকড়া এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে বেলাল হোসেন (৫৫), সান্দিড়া এলাকার নাছির উদ্দীনের ছেলে শাহজাহান আলী (২৮)।

কারখানার হিসাবরক্ষক জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু বলেন,
ওই পাঁচজন শ্রমিক কারখানার উত্তর দিকে মেশিনের সহকারী হিসাবে কাজ করছিলো। বেলা সাড়ে ১১ টায় মেশিন চলাকালীন অবস্থায় আগুনের সূত্র পাত ঘটলে সবাই বেড়িয়ে আসে। ওই পাঁচজনও বেড়িয়ে আসছিলো। হঠাৎ প্রবেশ গেটে আসার পর কাজের জায়গায় শীতের কাপড় রাখা আছে বলে নিতে যায়। তখন নিতে গিয়ে আটকে পড়ে তারা। তার কিছুক্ষন পর আগুন চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। এতেকরে আগুনে দগ্ধ হয়ে তারা মারা যায়। তিনি আরও বলেন, ওই পাঁচ শ্রমিকের দাফনের কাজ সম্পন্নের জন্য পরিবারকে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।

কারখানার প্লেট অপারেটর বাধন বলেন, আমি কার্টিং মিশিন চালাইতে ছিলাম যখন শুনতে পাই আগুন লেগেছে তখন আমার মেশিন ইমারজেন্সি ভাবে বন্ধ করে দিয়ে আগুন নিভানোর জন্য চেষ্টা করি পরে দেখি আগুন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলেগেছে তখন আমি বেড় হয়ে চলে যাই আমার পিছনে কয়েকজন ছিলো তারাও বের হয়ে চলে আসে। তবে কি ভাবে আগুন লেগেছে তা আমার জানা নেই।

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন বলেন, শারীরিক গঠনসহ বিভিন্ন আলামত দেখে স্বজনরা নিহতদের মরদেহ শনাক্ত করেন এবং ৫ টি মরদেহের ওয়ারিশরা আলাদা ভাবে শনাক্ত করায় কোনো সমস্যা সৃষ্টি হয়নি। পরে পরিবারের কাছে তাদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ওয়ারিশদের মধ্যে নাছীর উদ্দীন বাদী হয়ে ইউডি মামলা দায়ের করেছেন।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রাবণী রায় বলেন, ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালে উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের হবির মোড় সংলগ্ন এলাকায় বিআইআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ নামে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরি তৈরি করা হয়। এখানে মূলত ওয়ান টাইম প্লেট ও গ্লাস উৎপাদন করে থাকে। দিনরাত মিলে ৭৩ জন কর্মকর্তা কর্মচারি চাকরি করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করেন। ডে শিফটে ৪৫ জন নারী-পুরুষ শ্রমিক কাজ করতো। মঙ্গলবার হঠাৎ বেলা সাড়ে ১১ টায় মেশিন চলাকালীন অবস্থায় আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রাথমিক ভাবে চেষ্টা করা হয়। পরে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে ফায়ার সার্ভিসে জানানো হয়। তবে এ ঘটনায় ডে শিফটে থাকা ৪০ জন শ্রমিক বেড়িয়ে আসলেও বাকি ৫ জন শ্রমিক ফ্যাক্টরিতে আটকা পড়ে। পরে বগুড়ার নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসের ১২ ইউনিট চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিয়ন্ত্রণের পর ফ্যাক্টরিতে প্রবেশ করে পাঁচ শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের দল। ফ্যাক্টরিতে মেশিনারিসহ ৩৫ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করেন বিআইআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু।

 

ডিসেম্বর ১৫
১৬:২৩ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]