সর্বশেষ সংবাদ :

সাকিবদের বিপক্ষে ফাইনাল ইমরুলের কাছে সাহসের লড়াই

স্পোর্টস ডেস্ক: দুই দলেই আছে বড় কিছু নাম। কাগজে-কলমে তো বটেই, পারফরম্যান্সের বিচারও তারা টুর্নামেন্টের সেরা দুই দল। সামনে এবার শেষ পরীক্ষা। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স অধিনায়ক ইমরুল কায়েস মনে করছেন, শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে ব্যবধান গড়ে দিতে পারে স্নায়ু চাপ। যে দল বেশি সাহসী ও শান্ত থাকবে তারাই এগিয়ে যাবে।
মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবার বিপিএলের অষ্টম আসরের ফাইনালে ফরচুন বরিশালের মুখোমুখি হবে কুমিল্ল। ম্যাচটি শুরু হবে বিকাল সাড়ে পাঁচটায়। আগের দিন ইমরুল বললেন, সাকিবের বরিশাল ও তার দলের মধ্যে শক্তিতে খুব একটা পার্থক্য দেখেন না তিনি।
“আমি মনে করি, যে দুইটা দল ফাইনাল খেলবে বলে সবাই আশা করেছিল, তারাই ফাইনাল খেলতে যাচ্ছে। এই দুইটা দলই ফাইনালে খেলা ডিজার্ভ করে। ফাইনাল ম্যাচে যারা ভালো ক্রিকেট খেলবে, যারা সাহস নিয়ে খেলবে, অনেক শান্ত থাকবে, তাদেরই সম্ভাবনা বেশি থাকবে জেতার।”
“টস জিতে ম্যাচ হেরেছি আবার টস হেরেও ম্যাচ জিতেছি। তাই আমার মনে হয়, কালকের ক্রিকেট হবে পুরোই সাহস নিয়ে। যে যত সাহস নিয়ে খেলতে পারবে, যে যত শান্ত থাকতে পারবে মাঠের ভেতরে, তার দিকেই ফল যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।”
ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে তৃতীয় শিরোপার হাতছানি কুমিল্লার সামনে। অধিনায়ক হিসেবে ইমরুলের জন্য দ্বিতীয়। মাশরাফি বিন মুর্তজার পর প্রথম অধিনায়ক হিসেবে একাধিক আসরে শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়তে উন্মুখ হয়ে আছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।
“মাশরাফি ভাই অনেক বড় খেলোয়াড়, চারবার বিপিএল চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। এটা অনেক বড় একটা অর্জন। আমি চেষ্টা করছি। কুমিল্লাকে একবার চ্যাম্পিয়ন করেছি, আরেকবার যদি করতে পারি, নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে করব। এখান দেখা যাক।”
“এর আগে কুমিল্লা দুইবার ফাইনাল খেলেছে এবং চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আশা করি, কালকের ম্যাচটাতেও আমরা একই প্রক্রিয়ায় যাব। প্রথম কোয়ালিফায়ার যখন হেরে যাই আমরা হতাশ ছিলাম, কী করব না করব (এ নিয়ে দ্বিধায় ছিলাম)। কিন্তু কালকে (বুধবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে) যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি, আমাদের আত্মবিশ্বাস এখন অনেক ওপরে। লক্ষ্য তাড়া বলেন বা প্রথমে ব্যাটিং বলেন সবকিছুতে ইতিবাচক আছি।”
অধিনায়কের কণ্ঠে আত্মবিশ্বাসী সুর থাকলেও এবারের মুখোমুখি লড়াইয়ের চিত্রটা ভিন্ন। লক্ষ্য তাড়ায় বরিশালের বিপক্ষে একবারও পেরে ওঠেনি কুমিল্লা। প্রাথমিক পর্বে প্রথম দেখায় আগে ব্যাট করে জেতে দলটি। পরের দেখায় ১৫৫ রান তাড়ায় হারে ৩২ রানে। পরে প্রথম কোয়ালিফায়ারে ১৪৩ রান তাড়ায় থমকে যায় ১৩৩ রানে। ফাইনালে আবার রান তাড়া করতে হলে ভাগ্য বদলাবে, আশাবাদী ইমরুল।
“আমাদের বোলিংয়ের দিক থেকে কোনো সমস্যা নেই। আমাদের সমস্যাটা হলো ব্যাটিং। রান তাড়া করতে গিয়ে আমরা আমাদের পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করতে পারিনি। তবে অবশ্যই কালকে একটা নতুন দিন, নতুন ম্যাচ হবে। দেখা যাক, আমরা আক্রমণাত্মক থাকব।”


প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২২ | সময়: ৬:২৮ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ