Daily Sunshine

মুমিনুলের চোখে লিটন বিশ্বমানের খেলোয়াড়

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে দারুণ এক ইনিংস খেললেন লিটন দাস। গত দুই বছর ধরে টেস্টে ধারাবাহিকভাবে ছন্দে আছেন ডানহাতি ব্যাটার। ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে ইনিংস হার এড়াতে অনেকটা একাই লড়লেন। তার একেকটি শট যেন শিল্পীর তুলিতে আঁকা কোনও ছবি। সমান্তরালে আবার গতিময় স্ফুলিঙ্গও স্পষ্ট। পুরো মাঠ জুড়েই খেলেছেন দৃষ্টিনন্দন শটস। অনেকটা ওয়ানডে স্টাইলে খেলে তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। তার এমন ইনিংসে প্রশংসা ঝরেছে ধারাভাষ্যকারদের কণ্ঠে। ম্যাচ শেষে অধিনায়ক মুমিনুল হকও প্রশংসায় ভাসালেন লিটনকে।
মঙ্গলবার ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের তৃতীয় দিনে দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ে ১০২ রানের ইনিংস খেলেছেন লিটন। ৬৯ বলে প্রথম হাফসেঞ্চুরির পর পরের পঞ্চাশ তোলেন ৩৭ বলে। সব মিলিয়ে ১১৪ বলে ১৪ চার ও ১ ছক্কায় সাজান নিজের ইনিংসটি।
লিটনের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করে মুমিনুল বলেছেন, ‘লিটন টেকনিক্যালি অনেক সাউন্ড। লিটন বিশ্বমানের খেলোয়াড়দের মতো। আমার মনে হয়েছে, খারাপ বল ছাড়া অন্য কোনও বলে ও (লিটন) চড়াও হয়নি। যে বলগুলো স্কোর করার মতো সেগুলো কাজে না লাগাতে পারলে রান হবে না। আমার মনে হয়, দীর্ঘ একটা সময় অপেক্ষা করতে করতে যখন খারাপ বল বেশি পরিমাণে পেয়েছে তখন চড়াও হয়েছে। ব্যাটিং দেখতে খুব ভালো লাগছিল। আমরা সবাই খুব খুশি হয়েছি। এই বছরে টানা দুই সিরিজে দুটি সেঞ্চুরি করেছে, দলের সবাই খুশি। আমিও ওর ইনিংস খুব উপভোগ করেছি।’
লিটনের ব্যাটিং ভালো হলেও দলের অন্যরা ছিলেন ছন্নছাড়া। প্রথম ইনিংসের চেয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ভালো হয়েছে। তবে বেশিরভাগ ব্যাটরাই শুরুটা ভালো করলেও ইনিংস টেনে নিতে পরেননি।
নিজেদের ব্যাটিং নিয়ে মুমিনুল বলেছেন, ‘দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে আমরা খুব বাজে ব্যাটিং করেছি। আমরা যতটা আশা করেছিলাম, বোলিংটাও তেমন করতে পারিনি। এরপরও প্রথম ইনিংসে ভালো (ব্যক্তিগত) ইনিংস ছিল। রাব্বির (ইয়াসির আলী) ফিফটি ছিল, সোহান ৪১-এর মতো করেছে। সিনিয়র খেলোয়াড় হিসেবে, অধিনায়ক হিসেবে আমার আরও ভালো করা উচিত ছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে লিটনের সেঞ্চুরি অসাধারণ একটা ইনিংস। সোহানও খুব ভালো করেছে।’

জানুয়ারি ১২
০৫:৩৫ ২০২২

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]