Daily Sunshine

ঢামেক হবে সম্পূর্ণ আধুনিক হাসপাতাল, নির্মাণকাজ শুরু শিগগিরই: প্রধানমন্ত্রী

Share

দেশের অন্যতম প্রধান চিকিৎসা কেন্দ্র ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে আধুনিক একটি হাসপাতালে রূপান্তরের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, (নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে) সেখানে একসঙ্গে চিকিৎসা নিতে পারবেন প্রায় ৫ হাজার রোগী। একই সঙ্গে বিশেষায়িত চিকিৎসার ব্যবস্থাও থাকবে সেখানে। রবিবার (৯ জানুয়ারি) সকালে দেশের আটটি বিভাগীয় শহরের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪৬০ শয্যা বিশিষ্ট হার্ট, কিডনি ও ক্যান্সার চিকিৎসার সমন্বিত ইউনিট স্থাপনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একথা বলেন। তিনি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের সাহায্যে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন। তিনি বলেন, ‘ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ অত্যান্ত পুরনো। বিশেষ করে কলেজ বিল্ডিংয়ের অবস্থা খুবই খারাপ, যে কোনও সময় ধসে পড়ে যেতে পারে—  এমন একটা অবস্থা দাঁড়িয়েছে। আমরা সেখানে সম্পূর্ণ আধুনিক একটি হাসপাতাল নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি।’ পরিকল্পিত এই আধুনিক সুবিধাসম্পন্ন ভবনের নির্মাণ কাজ  শিগগিরই শুরু হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘যেহেতু চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে এটা করা যাবে না, সেকারণে একেকটা উইং আলাদাভাবে ধাপে ধাপে তা সম্পন্ন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যেন একই সঙ্গে চিকিৎসাও চলে আবার উন্নয়নের কাজও চলমান থাকে।’ এসময় স্বাস্থ্যখাতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নকাজের বিবরণ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে বার্ন ইউনিটের জন্য মাত্র ১০টি শয্যা ছিল। আগুনে পুড়ে কেউ চিকিৎসা নিতে আসলে প্রকৃতপক্ষে সেই সেবাটা সেখানে ছিলই না। আমরা সেখানে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট একটা বার্ন ইউনিট চালু করি। সেখানে প্লাস্টিক সার্জারির জন্য একটি অপারেশন থিয়েটারও করে দেওয়া হয়। দুর্ভাগ্য যে এটার কাজ শেষ হতে হতে আমাদের ক্ষমতার মেয়াদকাল শেষ হয়ে যায়। বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর সেটা আর চালু করেনি। পরবর্তীতে ক্ষমতায় আসার পর আমরা লোকবল দিয়ে সেটা পুনরায় চালু করেছি এবং শয্যা সংখ্যা বাড়ানো হয়। পরবর্তী সময়ে একটা বার্ন ইনস্টিটিউটই করে দেওয়া হয়। সেখানে আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবস্থাও করে দেওয়া হয়েছে।’ এসময় প্রধানমন্ত্রী জানান, এক বছরের নিচে এবং ৬৫ বছরের উপরে বয়সীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দেওয়ার কথাও ভাবছে সরকার। বক্তব্য শেষে দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪৬০ শয্যা বিশিষ্ট সমন্বিত ক্যান্সার, কিডনি ও হৃদরোগ ইউনিটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই আট হাসপাতালে সর্বোমট বেড সংখ্যা ৪ হাজার ৬৮০টি। এগুলো বাস্তবায়ন হলে শুধু চিকিৎসা সেবার মান পরিবর্তন হবে না, মানুষের জীবন রক্ষা হবে ও বিদেশে চিকিৎসা নেওয়ার প্রবণতা অনেকাংশে কমবে। এতে দেশের হাজার হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় হবে। ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন প্রান্তের এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক ভিসি ও সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, বিএসএমএমইউ ভিসি অধ্যাপক মো. ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম প্রমুখ।

জানুয়ারি ০৯
১৩:৪৯ ২০২২

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]