Daily Sunshine

মানুষের কল্যানে কাজ করার প্রত্যয় লিটনের

Share

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছেন, তা যথাযথভাবে পালন করে মানুষের কল্যানে কাজ করে যাব। সকলে আমার জন্য দোয়া করবেন, যাতে আমি আমার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে যেতে পারি।’ শনিবার বিকেলে বাটার মোড়ে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যকালে এই কথা বলেন তিনি।
এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘আমার যে মেধা আছে, যে বুদ্ধি আছে, সেটা দিয়ে আমি আওয়ামী লীগের নামক বটবৃক্ষের গোড়ায় এক ফোটা পানি ঢালতে পারি, তবেই আমার জীবন সার্থক হবে। রাজনীতিতে সম্পৃক্ত থেকে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মানুষের কল্যানে কাজ করে যেতে চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যেই গুরু দায়িত্ব আমাকে দিয়েছে, সেই উপলক্ষে আজকে এখানে এসেছেন আমাকে সংবর্ধনা দিচ্ছেন, আপনারা আমাকে না, সংবর্ধনা দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া আওয়ামী লীগকে।’
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা যে চোখ দিয়ে তাঁর কর্মীদের নেতৃত্বের পর্যায়ে নিয়ে আসেন। সেই চোখে আমার দিকে তাকিয়েছেন। চির কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি। বঙ্গবন্ধু কন্যা যিনি দেশ গড়ছেন, শুধু দেশ নয়, দলকে পরিবর্তন করছেন, দলকে আরও মানুষের কাছে নিয়ে যাবার জন্য নেতৃত্ব বাছাই করে নিয়ে আসছেন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত থেকে উন্নততর হিসেবে গড়ে উঠছে।
তিনি আরো বলেন, ‘আমার পিতা জাতীয় চার নেতার অনত্যম শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা নিয়ে সমগ্র উত্তরবঙ্গের মানুষকে উজ্জীবিত করতেন। বঙ্গবন্ধুকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথামতো আমি কাজ করে যাব।’
তিনি বলেন, রাজনীতি করতে গিয়ে ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীগ রাজশাহী মহানগর শাখার শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে আমি আমার যাত্রা শুরু করি। সেই থেকে যাত্রা শুরু। সবচেয়ে তৃণমূল পর্যায় থেকে রাজনীতি থেকে নানা চড়াই উৎড়াই, লড়াই সংগ্রাম, সুখের দিন, দুঃখের দিন পেরিয়ে রাজপথ কাপিয়ে রাজশাহী থেকে বিএনপি জামাতকে বিতাড়িত করেছি স্বমুলে।
অনুষ্ঠানে বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ৩২নং ধানমন্ডীতে নিহত সকল শহীদদের প্রতি, মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের প্রতি, রাজশাহীতে শায়িত হযরত শাহ মখদুম, হযরত শাহ তুরকান রহ: পবিত্র আত্মার প্রতি শান্তি কামনা করেন রাসিক মেয়র।
গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুল খালেক। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল। বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, সদস্য আখতার জাহান সহ বিভিন্ন সাংসদবৃন্দ ও বিভিন্ন জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। জননেতা এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের পরিবারের পক্ষে তাঁর কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা বক্তব্য দেন।

ডিসেম্বর ১২
০৪:৩৯ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]