Daily Sunshine

মোহনপুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীকে মারপিট, গাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ

Share

স্টাফ রিপোর্টার: আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মোহনপুরে একের পর এক ঘটনা ঘটেই চলেছে। হামলা, হুমকি, মারপিট এই উপজেলার নিত্যাদিনের সঙ্গী। প্রতিনিয়ত অভিযোগ এই উপজেলার নির্বাচনী মাঠের। বিশেষ করে এই ইউনিয়নে নির্বাচনে দাঁড়িয়ে বেকায়দায় পড়েছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। ধুরইল ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক কাজিম উদ্দিনের (আনারস প্রতিক) কর্মীকে বাড়ি থেকে উঠিয়ে নিয়ে মারধর এবং পুলিং এজেন্ট হলে হাত পা ভাঙ্গার হুমকি দেয়ার অভিযোগ প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর বিরুদ্ধে। এব্যাপারে এই স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচন কমিশন অফিসে অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ থেকে জানা গেছে, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজিম উদ্দিনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আওয়ামীলীগ মনোনীত দেলোয়ার হোসেনের কর্মী ও সমর্থকরা ২২ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় আনারস মার্কার প্রচার কর্মী মল্লিকপুর শেখ পাড়ার মৃত ছেহের আলীর ছেলে আছির উদ্দিন ওরফে আছর (৬০) ফোনে শাফিকুল ইসলাম ডেকে বাড়ির বাহিরে বের করে নেয়। আছর বাড়ির বাহির হলেই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী একাধিক মামলার আসামী মহব্বতপুর গ্রামের মৃত কছিম উদ্দিনের ছেলে আলী (৫৫), হবুল্লাহর ছেলে শাফিকুল (৪৫) ইসলামসহ ১০/১২জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাকে জোর পূর্বক মোটরসাইকেলে উঠিয়ে নেয়। এরপর তারা ভুক্তভোগীর বাড়ি থেকে সাড়ে ৩শ গজ দুরে নিয়ে আছরকে মারপিট করে মোটরসাইকেল থেকে ফেলে দেয়। এসময় আলী ও তার লোকজন তাকে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে লাঠি পেটায় ও লাথি ঘুষি চড় থাপ্পড় মারে।
তাদের অত্যাচারে এক পর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তারা মোবাইল ফোনটি ভেঙে ফেলে এবং তাকে রেখে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি জানতে পেরে তাকে উদ্ধার করে তানোর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ইতিপূর্বে আলী বাহিনী ও দেলোয়ার হোসেনের ছোট ভাই মোহনপুর উপজেলার একটি বাড়ি একটি খামার (পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে অফিসার পদে কর্মরত) বুলবুল হোসেন এবং তার লোকজন ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে আইনশৃংখলা বাহিনীর সামনে মোটরসাইকেল শোডাউন করে ভোটারদের ভয়ভীতি ও কেন্দ্রে পুলিং এজেন্ট থাকলে হাত পা ভেঙে ফেলা হবে হুমকি দিয়ে আসছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
এবিষয়ে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক কাজিম উদ্দিন বলেন, ইউনিয়নের নৌকা নিয়ে নির্বাচন করা চেয়ারম্যান প্রার্থী বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রচার করছেন নৌকা প্রতিকে ভোট না দিলে মাথা ফাটিয়ে দেয়া হবে। ভোট না দিলে কেন্দ্রে আসার প্রয়োজন নাই এমন বক্তব্যে ভোটারদের প্রতিনিয়ত ভীতির সঞ্চার সৃষ্টি হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় ভোটের পোষ্টার উঠিয়ে ফেলা হচ্ছে। আমার ভোটার ও কর্মীদের ভোট না করার জন্য নিয়মিত ভয়-ভীতি প্রদান করছে। এখন তারা আমার ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট কেন্দ্রে না আসার জন্য হুমকী দিচ্ছে।
এদিকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মল্লিকপুর মজলিসবাড়ির রাস্তায় নির্বাচনী প্রচারণাকালে আলী বাহিনী আনারসের প্রচারনার গাড়ি ও মাইক ভাংচুর, ড্রাইভারকে মারধর করে মাইকের যন্ত্রপাতি নিয়ে চলে গেছে। ড্রাইভারকে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য এখানে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন দরকার বলেও দাবি করেন তিনি।
এব্যাপারে জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) জানান, অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সর্বদা পুলিশ প্রস্তুত রয়েছে। নির্বাচনী আচরণবিধির জন্য একজন ম্যাজিস্ট্রেট কাজ করছেন। তিনি তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

নভেম্বর ২৪
০৬:৪৫ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]