সর্বশেষ সংবাদ :

সম্মিলিত প্রচেষ্টা থাকলে কিশোর গ্যাং থাকবে না

স্টাফ রিপোর্টার: কিশোর গ্যাং সদস্যদের কোনোভাবেই রাজনৈতিক প্রশয় দেয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন রাজশাহী সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) রাজশাহীতে ‘কিশোর গ্যাং অপসংস্কৃতি এবং আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে অংশ নিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি। দুপুরের দিকে রাজশাহী নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজে এই সেমিনারের আয়োজন করে র‌্যাব-৫। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মেয়র লিটন।
তিনি বলেন, কিশোর গ্যাং অপসংস্কৃতি প্রতিরোধে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, পরিবার, শিক্ষক সমাজসহ সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা থাকলে আগামীতে কিশোর গ্যাং বলে কোনো গ্যাং থাকবে না।
প্রত্যেক বাবা-মাকে নিজ সন্তানের সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর রাখার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, সন্তান কোথায় যাচ্ছে, কার সঙ্গে মিশছে, তার বন্ধু কারা এ বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। কিশোর গ্যাং অপসংস্কৃতি প্রতিরোধে পরিবার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা কিশোরদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করবেন। পরিবার থেকে সন্তানকে নৈতিক শিক্ষা প্রদান করতে হবে।
সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. জিয়াউর রহমান তালুকদার। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পশ্চিমা বিশ্বের কিশোর গ্যাংয়ের অনুকরণে বাংলাদেশে কিশোর গ্যাংয়ের উদ্ভব। ২০১৭ সাল থেকে অদ্যাবধি ৩৭৩ জন কিশোর গ্যাং সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪০ জনকে সংশোধনের জন্য পরিবারের কাছে ফেরত দেওয়া হয়েছে।
আধিপত্য বিস্তারসহ বিভিন্ন তুচ্ছ কারণে কিশোররা অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। কিশোর গ্যাং অপসংস্কৃতি প্রতিরোধে পরিবার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সমাজ ও জনপ্রতিনিধিদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নিউ গভঃ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কালাচাঁদ শীল বলেন, কোন শিশু অপরাধী হয়ে জন্মগ্রহণ করে না। পরবর্তীতে কেন সে অপরাধে জড়িয়ে পরে তার কারণ খুঁজে বের করতে হবে।
নিজ সন্তান কোথায় যাচ্ছে, কার সাথে মিশে, সেটি বাবা-মাকে খেলায় রাখতে হবে। শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের শাসন করার ক্ষমতা হারিয়েছে, সেটি ফেরত আনতে হবে। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে সৌর্হার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।


প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২১ | সময়: ৬:০১ পূর্বাহ্ণ | সুমন শেখ