Daily Sunshine

পত্নীতলা হাসপাতালে চিকিৎসক ও জনবল সংকটে ব্যাহত সেবা

Share

পত্নীতলা প্রতিনিধি: নওগাঁ জেলার অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি উপজেলা পত্নীতলা। এ উপজেলায় প্রায় আড়াই লক্ষ মানুষের বসবাস। উপজেলার এই মানুষ গুলোর জন্য আছে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। উপজেলাটি জেলার মধ্যবর্তী হওয়ায় আশেপাশের অন্যান্য উপজেলার রোগীরাও এ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে থাকে। সম্প্রতি এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকটের কারনে চরম দুর্ভোগে পড়েছে অত্রাঞ্চলের মানুষ।
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানাগেছে, ৩১ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ২০০৬ সালে ৫০ শয্যায় উন্নতি করা হয়। এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অধিনে ডাক্তার, নার্স, কর্মচারী ও সিএইচসিপি-র ১৮১ পদের মধ্যে জনবল আছে ১৩৮ জন, শূন্য পদ রয়েছে ৪৩। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অধিনে ৩৩ জন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও রয়েছে ১৬ জন, শূন্য পদ রয়েছে ১৭।
মাঠ পর্যায়ে ১২ জনের স্থলে রয়েছে ১০ জন, শূন্য পদ রয়েছে ২। স্বাস্থ্য সহকারী পদে ৪০ জনের পদ থাকলেও রয়েছে ২৭ জন, শূন্য পদ রয়েছে ১৩। তবে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য ২১ জন চিকিৎসকের পদ থাকলেও রয়েছে মাত্র ৬ জন, শূন্য পদ রয়েছে ১৫।
দীর্ঘদিন যাবৎ শূন্য রয়েছে জুনিয়র কনসাল্ট (সার্জারী) পদে ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (মেডি.) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (গাইনী) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (এ্যানেসথেসিয়ান) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (অর্থো সার্জারি) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (কার্ডিওলজি) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (চক্ষু) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (ইএনটি) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (শিশু) ১ জন, জুনিয়র কনসাল্ট (চর্ম ও যৌন) ১ জন, আরএমও পদে ১ জন, মেডিকেল অফিসার ১ জন, মেডিকেল অফিসার (ইনডোর) ১ জন, মেডিকেল অফিসার (হোমিওপ্যাথি) পদে ১ জন, প্যাথলজিস্ট ১ জন, মিডওয়াইফ ১ জন, প্রধান সহকারী ১ জন, ভান্ডার রক্ষক ১ জন, এমটি (ফিজিও.) ১ জন, স্বাস্থ্য পরিদশক পদে ২ জন, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদশক পদে ৩ জন, স্বাস্থ্য সহকারী ১৩ জন, সহকারী নাস ১ জন, টিকিটক্লার্ক ১ জন, ল্যাব এ্যাটেনডেন্ট ১ জন, অফিস সহায়ক ১ জন ও সুইপার পদে ১ জন।
উপজেলার উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলোতেও রয়েছে জনবল সংকট যার মধ্যে কাটাবাড়ী উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার পদে ১ জন ও অফিস সহায়ক পদে ১ জন, মান্দাইন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র অফিস সহায়ক পদে ১ জন, মধইল উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অফিস সহায়ক পদে ১ জন, সুবরাজপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে মেডিকেল অফিসার পদে ১ জন, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার পদে ১ জন ও অফিস সহায়ক পদে ১ জন, গগণপুর ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার পদে ১ জন এবং আমন্ত উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অফিস সহায়ক পদে ১ জন নেই।
পত্নীতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চাহিদা অনুযায়ী প্রসূতী সিজারসহ অন্যান্য ছোট-খাট অপারেশনের ব্যবস্থা থাকলেও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের অভাবে রোগীদের পোহাতে হচ্ছে ভোগান্তি।
অতিতে ২০০৫, ২০০৮ ও ২০০৯ সালে ইওসি কার্যক্রমে দেশের মধ্যে পত্নীতলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জাতীয় পুরস্কার পেলেও দীর্ঘদিন যাবৎ বিশেষজ্ঞ গাইনি সার্জন ও অবস (এ্যানেস.) ডাক্তার না থাকায় মা ও প্রসূতি সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। অন্যদিকে করোনা কালিন সময়ে সেন্ট্রাল অক্্িরজেন সেবা না থাকায় করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে।
এছাড়া ডিজিটাল এক্স-রে (সিআর) মেশিন না থাকায় সড়ক দুর্ঘটনা সহ বিভিন্ন ঘটনায় গুরুতর আহত জখম এবং করোনার সময়ে উপর্সগের রোগীদের জন্য এক্স-রে করা জরুরি হলেও কাঙ্খিত এই সেবা মিলছে না। আবার রোগীদের সেবায় নিয়োজিত দুটি অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে একটি অ্যাম্বুলেন্স চালকের অভাবে পড়ে রয়েছে। অপরদিকে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহ না থাকায় সরকারী বাজেট অনুযায়ী চাহিদার ৫ভাগের এক ভাগ রোগীর ঔষধের চাহিদা মেটানোও সম্ভব হচ্ছে না।
এবিষয়ে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. খালিদ সাইফুল্লাহ জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৫০ শয্যায় উন্নীত হওয়ার পর প্রয়োজনীয় জনবল পাওয়া যায়নি। তবে জনবলসহ যন্ত্রাংশ সংকটের কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে অল্প সময়ের মধ্যে এ সংকট সমাধান হবে।

অক্টোবর ১১
০৬:৩৩ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]

সর্বশেষ