Daily Sunshine

ভাঙ্গুড়ায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল আত্মসাতের অভিযোগ

Share

ভাঙ্গুড়া প্রতিনিধি: পাবনার ভাঙ্গুড়ায় হত দরিদ্রদের জন্য ভিজিডি কার্ডের চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে উপজেলার মন্ডতোষ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আফছার আলী মাস্টারের বিরুদ্ধে।
জানা যায়, উপজেলার মন্ডতোষ ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড, মল্লিকচক গ্রামের হতদরিদ্র আলম এর স্ত্রী ভিজিডি(১২৭) নং কার্ড ধারী শাকিলা খাতুনের কাছ থেকে গত কয়েক মাস পূর্বে ৫ হাজার টাকা দাবি করেন ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যান। হতদরিদ্র কার্ড ধারী শাকিলা টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। কার্ড ধারী চাউল আনতে গেলে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বার আরিফুল ইসলাম স্বপন কার্ড কেড়ে নিয়ে হত দরিদ্র শাকিলাকে অপমান অপদস্ত করে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বের করে দেন। এরপরে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বার স্থানীয় ভাবে ঔ গ্রামের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মৃত আজিম উদ্দিনের ছেলে ফারুক হোসেনের মাধ্যমে ভিজিডি কার্ড ধারীকে টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। স্থানীয় ক্যাডারদের হাত থেকে বাঁচতে কার্ড ধারী ভাঙ্গুড়া পৌরসভার মেয়রের কাছ থেকে ১ হাজার টাকা সহযোগিতা নেয়। পরের দিন ইউপি চেয়ারম্যানকে ২ হাজার টাকা দিলে টাকা কম হওয়ায় না নিয়ে ভয়ভিতি দেখিয়ে বলেন ৫ হাজার টাকার একটি পয়সা কম হলে কার্ড কেটে দেব। ৪ মাস পর শাকিলাকে ইউনিয়ন পরিষদের ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক বইয়ে টিপসই নিয়ে তিন মাসের তিন বস্তা চাউল বিক্রি করে চাঁদার টাকা আদায় করেন ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বার । চার মাস পরে বর্তমান তাকে এক মাসের ১ বস্তা চাউল দিয়েছে বলে ভোক্তভোগী হতদরিদ্র কার্ডধারী শাকিলা জানায়।
এ বিষয়ে মন্ডতোষ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আফসার আলী মাস্টার বলেন ৫ হাজার টাকা দেওয়ার কথা স্বীকার করেছিল কার্ড ধারী শাকিলা ও তার পরিবার। কিন্তু আমাকে টাকা দেয় নাই। তাই আমার মেম্বার তিন মাসের তিন বস্তা চাল বিক্রি করে টাকা আদায় করেছে।
উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাসনাৎ জাহান বলেন, ভিজিডি কার্ড ধারীর কাছ থেকে কোন অর্থ আদায় করার নিয়ম নেই, তবে যদি কেউ নিয়ে থাকে বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে আইন গত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, লিখিত অভিযোগ না পেলে আমার কিছু করার নেই,তবে লিখিত অভিযোগ পেলে আইন গত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অক্টোবর ০৮
০৬:২৮ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]