Daily Sunshine

বিজিবির হাত থেকে পালাতে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে ভারতীয় মাদককারবারির মৃত্যু

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে মাদকসহ ধরা পড়ার পর হাতকড়া নিয়ে পদ্মায় ঝাঁপ দিয়ে পালানোর চেষ্টাকালে এক ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ১০০ বোতল ফেনসিডিলসহ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের হাতে ধরা পড়েছিলেন ওই ভারতীয় মাদককারবারি।
পরে তাকে কাটাখালি থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় পদ্মা নদীর ত্রিমোহনী এলাকা হাতকড়া পরা অবস্থায় নৌকা থেকে ঝাঁপ দেন। এতে পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয়। রোববার দুপুরে পদ্মার ত্রিমোহনী এলাকায় ভরতের লাশ ভেসে উঠে। বিকেলে রাজশাহীর কাটাখালী থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় কাটাখালী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে বিজিবি।
ভারতীয় ওই মাদক চোরাকারবারির নাম ভরত মণ্ডল (৩৩)। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার রানিনগর থানার চকরাজাপুর পশ্চিম কলোনি গ্রামে তার বাড়ি।
এজাহারের বরাতে কাটাখালী থানার ওসি এস এম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ভরত একজন মাদক ব্যবসায়ী। শনিবার রাতে তিনি ১০০ বোতল ফেনসিডিল নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। এরপর তিনি বিজিবির ১০ নম্বর পদ্মার চর সীমান্ত ফাঁড়ির সদস্যদের হাতে ধরা পড়েন।
ওসি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আটকের পর বিজিবি সদস্যরা তাকে নৌকায় করে আনছিলেন। এ সময় পালানোর জন্য হাতকড়া পরা অবস্থায় তিনি নদীতে ঝাঁপ দেন। এতে পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয়। এরপর দুপুরে লাশ ভেসে উঠলে জেলেরা বিজিবিকে খবর দেয়। পরে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ও একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করে। এর পর লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা অপমৃত্যুর মামলাটি নৌ পুলিশ তদন্ত করবে বলেন ওসি।
বিজিবির রাজশাহী ১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সাব্বির আহমেদ বলেন, ভারতীয় ওই মাদক ব্যবসায়ী ফেনসিডিলসহ রাজশাহী সীমান্তের ১০ নম্বর চরের খয়ের বাগানে এলাকায় বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বিজিবির হাতে ধরা পড়েন। পুলিশে সোপর্দ করার জন্য নৌকায় করে আনার সময় তিনি বিজিবির এক সদস্যকে ধাক্কা দিয়ে পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দেন। রাতে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। দুপুরে তার লাশ ভেসে উঠে।

অক্টোবর ০৪
০৫:৫৬ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]