Daily Sunshine

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে শুভসূচনা বাংলাদেশের

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: পরিকল্পনা অনুযায়ী পাসিং ফুটবলের পসরা মেলে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ মুঠোয় রাখল বাংলাদেশ। গোলের অপেক্ষাও ফুরাল দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রত্যাশিত জয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ত্রয়োদশ আসরে যাত্রা শুরু করল বাংলাদেশ।
আসরের উদ্বোধনী ম্যাচে শুক্রবার মালদ্বীপের রাজধানী মালের রাশমি ধান্দু স্টেডিয়ামে ১-০ গোলে জিতেছে ২০০৩ সালে প্রথম ও সবশেষ প্রতিযোগিতাটির শিরোপার স্বাদ পাওয়া বাংলাদেশ। দ্বিতীয়ার্ধের অনেকটা সময় একজন কম নিয়ে খেলা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একমাত্র গোলটি করে জয়ের নায়ক তপু বর্মন।
দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ এই প্রতিযোগিতায় দুই দলের সবশেষ দেখা হয়েছিল ২০০৯ সালে। সেবার এনামুল হকের জোড়া গোলে ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল বাংলাদেশ। ১১ বছর পর ফিরতি দেখায়ও উড়ল লাল-সবুজের বিজয় কেতন।
শুরুর দিকে লম্বা পাসে খেলা শ্রীলঙ্কা কিছুটা চাপ তৈরি করলেও বাংলাদেশের রক্ষণের তেমন কোনো পরীক্ষা নিতে পারেনি। ইয়াসিন আরাফাত, তপু, বিশ্বনাথ ঘোষ ও কাজী তারিক রায়হানে সাজানো ডিফেন্স লাইন ছিল অটুট। অন্তর্র্বতীকালীন কোচ অস্কার ব্রুসন প্রতিযোগিতার আগেই বলেছিলেন, রক্ষণাত্মক কৌশল বদলে দলকে আক্রমণাত্মক খেলাবেন। প্রস্তুতির জন্য মাত্র এক সপ্তাহ সময় পেলেও দলকে নিজের কৌশল রপ্ত করাতে পেরেছেন এই স্প্যানিশ কোচ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫৮ শতাংশ সময় বলের নিয়ন্ত্রণ রেখে বাংলাদেশ গোলের উদ্দেশ্যে শট নেয় ১৫টি, যার মধ্যে ৩টি ছিল লক্ষ্যে।
ধীরে ধীরে গুছিয়ে ওঠা বাংলাদেশ কৌশল অনুযায়ী পাসিং ফুটবল খেলে বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে শুরু করে। অষ্টম মিনিটে সুযোগও তৈরি হয়। বাঁ দিক থেকে ইয়াসিনের থ্রো ইনে বক্সের ভেতর থেকে শরীর ঘুরিয়ে জোরালো শট নেন তপু। এক ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়। ওই থ্রো ইনের পর বক্সে শ্রীলঙ্কার এক খেলোয়াড়ের হাতে বল লাগলে পেনাল্টির আবেদন করে বাংলাদেশ, কিন্তু রেফারির সাড়া মেলেনি।
২০তম মিনিটে শ্রীলঙ্কার হার্শা ফের্নান্দোর শট ক্রসবারের অনেক উপর দিয়ে যায়। দুই মিনিট পর জামাল ভূইয়ার ক্রসও একইভাবে উড়ে যায়। ৩৩তম মিনিটে গোছালো আক্রমণে উঠে বক্সের বাইরে বলের নিয়ন্ত্রণ হারান বাংলাদেশের বিপলু আহমেদ। প্রথমার্ধের শেষ দিকে আরাফাতের লম্বা ক্রসে হেড করেন তপু। বলের লাইন থেকে ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক সুজন পেরেরা। এ অর্ধে প্রতিপক্ষের রক্ষণে কয়েকবার হানা দিলেও ফিনিশিংয়ে সাফল্য পাননি বাংলাদেশের ফরোয়ার্ড সুমন রেজা।
ঘরোয়া লিগের গত আসরে বাংলাদেশি ফরোয়ার্ডদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ গোল করা জুয়েল রানাকে তুলে তারই আবাহনী সতীর্থ সাদউদ্দিনকে নামান অস্কার ব্রুসন। ৫৬তম মিনিটে তপুর পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে পেছনে ফেলে বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে গিয়ে হাতে লাগিয়ে বসেন ডিউকসন পুসলাস। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন লঙ্কান এই ডিফেন্ডার।
৭৩তম মিনিটে দুটি পরিবর্তন আনেন ব্রুসন। সুমন রেজাকে তুলে মতিন মিয়াকে এবং আক্রমণভাগের শক্তি বাড়াতে মিডফিল্ডার ইব্রাহিমের বদলি হিসেবে ফরোয়ার্ড মাহবুবুর রহমান সুফিলকে নামান কোচ। ১০ জনের দল নিয়েও শ্রীলঙ্কা মরিয়া হয়ে ওঠে সমতায় ফিরতে। তিন মিনিট পর দলটির ওয়াসিম রাজিকের শট এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে কিছুটা দিক পাল্টালেও প্রস্তুত থাকা আনিসুর রহমান জিকো সহজেই গ্লাভসে নেন।
৮৬তম মিনিটে দূরপাল্লার শটে চেষ্টা করেছিলেন সাদউদ্দিন। কিন্তু বল উড়ে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে। দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে বাঁ দিক দিয়ে মতিন বল নিয়ে বক্সে ঢুকলেও বাইরে থেকে মাঠের ভেতর আরেকটি বল আসে। ফলে ভেস্তে যায় সে আক্রমণ। তবে জয়ে শুরুর আনন্দ সঙ্গী হয়েছে বাংলাদেশের।
আগামী সোমবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে সাফের রেকর্ড সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। কঠিন এ ম্যাচের আগে আক্রমণভাগ নিয়ে নতুন করে ভাবতে হবে ব্রুসনকে। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে এবারের আসরে অংশ নেওয়া পাঁচ দলের মধ্যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে পেছনে থাকা শ্রীলঙ্কার (২০৫তম) বিপক্ষে যে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক ডিফেন্ডার তপু।

অক্টোবর ০২
০৬:১২ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]