Daily Sunshine

বাঘায় দুই সন্তানকে শাসন করতে একজনের মৃত্যু, পিতা গ্রেফতার

Share

স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা: রাজশাহীর বাঘায় দুই সন্তানকে শাসন করার ঘটনায় আহত এক সন্তান দেড়মাস পর মৃত্যুবরণ করেছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোর রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সে মারা যায়। মৃত সন্তানের নাম শিশির। খবর পেয়ে পুলিশ সকালে তার পিতা বাবলু হোসেনকে গ্রেফতার করেছে।
জানা গেছে, উপজেলার ফতেপুর বাউসা গ্রামের বাবুল হোসেন (৫২) পাট ধোয়াকে কেন্দ্র করে ভাইয়ে-ভাইয়ে দ্বন্দ্বের এক পর্যায় তিনি দেড় মাস পূর্বে তার দুই সন্তানকে শাসন করেন। এর মধ্যে ছোট ছেলে শাওনকে (১৮) হাত দিয়ে মারধর করে এবং বড় ছেলে শিশিরকে (২২) বাঁশের ফান্ডি দিয়ে মারপিট করেন। ঘটনার এক পর্যায় শিশির গুরুত্বর আহত হন।
বাউসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক জানান, পিতার হাতে সন্তানের মৃত্যু হবে এটা আমাদের কাম্য নয়। অসাবধানতা বসত বড় ছেলে শিশিরের মাথায় আঘাত হওয়ায় তাকে রামেক হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে সাময়িক চিকিৎসা দেয়ার পর কর্তৃপক্ষ তাকে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোর রাতে শিশির মৃত্যুবরণ করে।
এদিকে খবর পেয়ে সকাল ১০ টার দিকে বাঘা থানা পুলিশ শিশিরের পিতা বাবলু হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। আর এ খবর শুনে ঐ ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি এবং রাজনৈতিক নেতাসহ অসংখ্য মানুষ ছুটে আসেন বাবুল হোসেনকে ছাড়িয়ে নিতে।
বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বলেন, যে কোন দুর্ঘটনা থেকে মানুষ শিক্ষা নেয়। পিতার হাতে মার খেয়ে একজন সন্তান মারা যাবে এটি যদিও আমার প্রত্যাশা নয়, তার পরও প্যানেল কোর্ড আইনে এটাকে আমরা হত্যা বলে গণ্য করবো। তিনি এ ঘটনা থেকে অন্য অবিভাবক (পিতাদের) শিক্ষা গ্রহণের জন্য থানার বাইরে বাউসা এলাকার অর্ধশত মানুষের মাঝে দাঁড়িয়ে এ বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

সেপ্টেম্বর ৩০
০৬:০৮ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]