Daily Sunshine

নিয়ামতপুরে ভুয়া পত্তনি দলিলে কবরস্থান দখলের অভিযোগ

Share

নিয়ামতপুর প্রতিনিধি: নওগাঁ নিয়ামতপুরে ভুয়া পত্তনী দলিল করে কবরস্থান দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের শালালপুর গ্রামের অনেক পুরোনো একমাত্র কবরস্থান একই গ্রামের মৃত অবির উদ্দিনের ছেলে আব্দুস সাত্তার ১৯৭৪ সালের একটি পত্তনী দলিল করে দখলের চেষ্টা করছে। আব্দুস সাত্তার ১৯৭৪ সালের পত্তনী কেস নং ৫৮৬/৭৩ এর মাধ্যমে ৭০৪৩ নং পত্তনী দলিল করে তা গোপন রাখে। সম্প্রতি আব্দুস সাত্তার সেই দলিল বের করে গ্রামের একমাত্র করবস্থান দখলের চেষ্টা করছে।
গ্রামের অধিবাসী মোখলেছার রহমান বলেন, আব্দুস সাত্তার দীর্ঘদিন মসজিদের সরদারের দায়িত্ব পালন করেন। সে সময় মসজিদের অর্থায়নে করবস্থানে আম গাছ লাগানো হয়। এখন বিভিন্ন অনিয়মের কারণে তাকে মসজিদের সরদারের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিলে সে এখন সেই আমগাছসহ করবস্থান দখলের চেষ্টা করছে। কবরস্থানে গ্রামের অনেক মানুষের করব রয়েছে।
আরেক বাসিন্দ কামরুজ্জামানা বলেন, আমরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর আবেদন দিলে তারা এসে দেখে মাপ করে করবস্থানের এরিয়া নির্ধারণ করে ঘিরে দিতে বলেন এবং সাইন বোর্ড লাগিয়ে দিতে বলেন। আমরা সাইন বোর্ড লাগালে আব্দুস সাত্তার কিছু লাঠিয়াল বাহিনী এনে সাইন বোর্ড তুলে ফেলে।
গ্রামের জিল্লুর রহমানের স্ত্রী ফরিদা বেগম বলেন, আমাদের বিভিন্ন মামলার হুমকি প্রদান করে। আমরা আবেদন জানাচ্ছি কবরস্থান উদ্ধারের জন্য।
দছির উদ্দিন বলেন, আমরা তহসিল অফিস, সাব- রেজিস্ট্রি অফিসে গিয়ে তার করা পত্তনী দলিলের খোজ করি। গিয়ে কোন তথ্য পাই নি। সম্পূর্ণ জাল দলিল করেছে।
খাইরুল ইসলাম বলেন, আব্দুস সাত্তারের জন্ম ৬৯ সালে তাহলে কিভাবে ৭৪ সালে তার নামে দলিল হয়?
করবস্থান দখলের চেষ্টাকারী আব্দুস সাত্তার বলেন, আমি ১৯৭৩ সালে এসএ ১ নং খাস খতিয়ানভুক্ত ১৯১ নং দাগ রকম ভিটা পত্তনের জন্য আবেদন করলে সরকার বাহাদুর ৫৮৬ নং পত্তনী কেস মুলে ৭০৪৩ নং দলিল করে আমার নামে পত্তন করে দেয়। আমি সেই দলিল মূলে জায়গাটি দখলের অধিকার রাখি।
নিয়ামতপুর উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার অলক কুমার জানান, আমরা আবেদন পেয়েছি। পত্তন বাতিলের জন্য উর্ব্ধতন কতৃৃপক্ষের নিকট আবেদন জানানো হয়েছে।

সেপ্টেম্বর ২০
০৭:০২ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]

সর্বশেষ