Daily Sunshine

‘সুনাগরিকের জন্য ডিজিটাল সচেতনতা জরুরী’

Share

স্টাফ রিপোর্টার : বর্তমান আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবস্থায় সুনাগরিক গড়ে তুলতে হলে ডিজিটাল সচেতনতা জরুরী। আর এক্ষেত্রে সাংবাদিকরা অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে। বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে ডিজিটাল শিক্ষা বিষয়ক কর্মশালায় এমন মন্তব্য করেছেন বক্তারা। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)’র অর্থায়নে, ডিনেট এবং ফ্রেডরিক নওম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম যৌথভাবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।
কর্মশালায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মশিহুর রহমান বলেন, সাংবাদিকরা তাদের প্রতিবেদনের মাধ্যমে ডিজিটাল সচেতনতা বিষয়কে তুলে ধরলে শিক্ষার্থী ও তরুণরা উপকৃত হবেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে নানান সময়ে আধুনিক প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার না হওয়ায় শিক্ষার্থী ও তরুণরা নানান সময়ে বিপদে পড়ে। আবার ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়লেও এ বিষয়ক শিক্ষা বা সচেতনতা বাড়েনি। ফলে অসঙ্গতি তৈরী হচ্ছে। আর এসব অসঙ্গতি থেকে তরুণ শিক্ষার্থীদের জন্য গণমাধ্যমকর্মীরা এগিয়ে আসতে পারে।
অনুষ্ঠিত কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন রাজশাহী বিভাগের ২৫ জন গণমাধ্যমকর্মী। কর্মশালাটি পরিচালনা করার দায়িত্ব পালন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক মশিহুর রহমান এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার গোলাম রাব্বানী। কর্মশালাটিতে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন ডিনেটের পক্ষ থেকে আসিফ আহমেদ তন্ময়।
কর্মশালাতে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট সচেতনতা, ইন্টারনেটে সুরক্ষা, দায়িত্বশীলতার সাথে স্বাধীন মত প্রকাশ, ডিজিটাল আইন, ডিজিটাল অপরাধ, অনলাইনে ব্যক্তি পরিচয়, মিথ্যাচার ও ভুল খবর প্রচার এবং এ সংক্রান্ত আরও অনেক বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সবশেষে শিক্ষকরা এই উদ্যোগকে সফল করতে ও সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে ডিজিটাল সিটিজেন শিক্ষার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে ব্যক্তিগতভাবে নানাবিধ অঙ্গীকার করেন।
ডিনেট বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকা ও রাজশাহী জেলার পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষা বিষয়ক লার্নিং ও পিয়ার লার্নিং-এর ব্যবস্থা করেছে। শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়মিতভাবে এই কার্যক্রম চলবে আগামী কয়েক মাস জুড়ে।

সেপ্টেম্বর ১৭
০৬:৫২ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]