Daily Sunshine

সান্তাহারে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মেম্বারদের অভিযোগ

Share

আদমদীঘি প্রতিনিধি: বগুড়ার আদমদীঘিতে তিন বছর ধরে সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাদের প্রাপ্য বেতন ভাতা না পাওয়ায় ওই পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদুল হক টুলুর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন ইউপি (মেম্বার) সদস্যরা। বৃহস্পতিবার তাঁরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
জানাযায়, গত ২০১৬ সালে উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে এরশাদুল হক টুলু এবং প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে সদস্য পদে একজন করে ৯জন ও তিন ওয়ার্ড মিলে একজন করে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৩জন নির্বাচিত হয়। এসব নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা সরকারি খাত ও ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে বেতন ভাতাদি পেয়ে থাকেন। প্রতি সদস্য সরকারি খাত থেকে ৩ হাজার ৬০০টাকা ও ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে ৪ হাজার ৪০০ টাকা পেয়ে থাকেন। নির্বাচনের পর থেকে তারা সরকারি খাতের সম্মানী ভাতা পেলেও গত ৩ বছর ধরে ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে কোনো ভাতা পাচ্ছেন না। এসব বেতন ভাতাদি বুঝে পেতে বৃহস্পতিবার দুপুরে ইউপির নারী-পুরুষ মিলে ৯জন সদস্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে তিন বছরে প্রতিজন সদস্যের বকেয়া রয়েছে ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪০০ টাকা। অর্থাৎ ৯ জন সদস্যের মোট ১৪ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ টাকা বকেয়া রয়েছে। তারা দ্রুত এসব ভাতা পরিশোধের দাবী জানান।
অভিযোগকারি ইউপি সদস্যদের মধ্যে এমতিয়াজ আলম ও সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য শাহীনা জোয়ারদার বলেন, বিগত তিন বছর ধরে তারা ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে কোনো ভাতা পাননি। ফলে একপ্রকার বাধ্য হয়েই অভিযোগ করতে হয়েছে। সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদুল হক টুলু জানান, পরিষদের ব্যায় অনুপাতে রাজস্ব আদায় কম। এ কারনে পরিষদের খাত থেকে ইউপি সদস্যদের সময় মতো বেতন ভাতাদি দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তারপরও মেম্বারদের বকেয়া ভাতা পরিশোধ করার চেষ্টা করবো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শ্রাবনী রায় মুঠোফোনে জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। কি কারনে ইউপি সদস্যদের বেতন ভাতা বকেয়া রয়েছে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সেপ্টেম্বর ১০
০৬:০০ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]