Daily Sunshine

রুয়েট বাস চালক সালাম হত্যা মামলায় ৪ জনের যাবজ্জীবন

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(রুয়েট) এর বাস চালক আব্দুস সারাম হত্যা মামলায় ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল মতিহার থানায় দায়ের করা এ মামলায় আসামীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র পক্ষে ২৫জন সাক্ষির সাক্ষ্য গ্রহন শেষে বুধবার বেলা ১১টায় রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী এবং আসামী পক্ষের আইনজীবীদের উপস্থিগিতে এ রায় ঘোষণা করেন বিশেষ দায়রা জজ ও দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল, রাজশাহীর বিচারক অনুপ কুমার।
দন্ডিত আসামীর হলেন রাজশাহী মহানগরীর মতিহার থানার বাজেকাজলা এরাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে সাব্বির হোসেন, দিলদার আলীর ছেলে নূর নবী হোসেন ওরফে হৃদয়, কাজলা বিলপাড়া এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে সানোয়ার হোসেন ওরফে সাইমুন ওরফে এসএম সায়েম এবং কাজলার মৃত: ইসহাক আলীর ছেলে সোহেল রানা ওরফে সোহেল। এই মামলার অপর দুই আসামি প্রাপ্ত বয়ষ্ক না হওয়ার রায় ঘোষণার সময় তাদের আদালতে হাজি করা হয়নি। আদালত শুত্র জানায়, বাস চালক আব্দুস সারাম হত্যা মামলায় ৬ আসামির মধ্যে দুই জন প্রাপ্ত বয়স্ক নয়। তাই তাদের মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে বর্তমানে চলমান রয়েছে।
আদালতের রায়ে উল্লেক করা হয়, রাষ্ট্র পক্ষের আনিত সাক্ষিদের সাক্ষ্যের মাধ্যমে আসামীদের অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমানিত হওয়ায় আসামীদের দোষী সাব্যস্ত করে ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধি আইনের ৩০২ এবং ৩৪ ধারার বিধান মতে আসামীদের প্রত্যেককে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকা করে অর্থ অর্থ দন্ড, অনাদায়ে আরো এক বছর সশ্রম কারাদণ্ডে দন্ডিত করা হয়।
এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী,এন্তাজুল হক বাবু বলেন, বাস চালক আব্দুস সারাম হত্যা মামলায় ২৫ জন সাক্ষির স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। এতে রাষ্ট্র পক্ষ সন্দেহাতীতভাবে আসামীদের অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণীত হয়েছে। মামলায় আসামি পক্ষের আইনজীবী আবু বক্কর বলেন, আমরা এই মামলায় সঠিক বিচার পাইনি। আমার মক্কেলের সাথে পরামর্শ করে উচ্চ আদালতে আপীল করবো।
উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়(রুয়েট) শেখ হাসিনা হলের সামনে আব্দুস সালামকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। আব্দুস সালামের ছেলে পলাশ বাদি হয়ে নগরের মতিহার থানায় অজ্ঞাত নামা মামলা দায়ের করেন।

সেপ্টেম্বর ০৯
০৬:০৭ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]