Daily Sunshine

বয়স হলে উল্টাপাল্টা বলতেই পারেন, জাফরুল্লাহকে মির্জা ফখরুল

Share

সানশাইন ডেস্ক: গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে বিভ্রান্তকর মন্তব্য না করার অনুরোধ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘জাফরুল্লাহ সাহেবের বয়স হয়ে গেছে। তিনি অত্যন্ত সম্মানিত ও গুণী-জ্ঞানী লোক। কিন্তু বয়স হয়ে গেলে মানুষ কিছু উল্টাপাল্টা কথা বলতেই পারেন। তারেক রহমানকে নিয়ে করা তার মন্তব্যটা যুক্তিসঙ্গত না। তিনি ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেন, কথা বলছেন। তিনি গণতান্ত্রিক আন্দোলনের একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। তার এ ধরনের মন্তব্য অনভিপ্রেত। এসব মন্তব্য করার ফলে গণতন্ত্রবিরোধী শক্তিরই লাভ হয়। আমি তাকে অনুরোধ জানাবো, যেসব কথায় জনগণ বিভ্রান্ত হয় সেসব কথা যেন তিনি না বলেন। তারেক রহমানই বিএনপির নেতা।’
সোমবার দুপুরে ঠাকুরগাঁওয়ের কালিবাড়ির নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত আশাবাদী, তারেক রহমানের নেতৃত্বে দল সুসংগঠিত হবে এবং আমরা একটা আন্দোলন সৃষ্টি করতে পারবো। যে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আমরা এই স্বৈরাচার, ফ্যাসিস্ট সরকারকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবো।’
তিনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানই স্বাধীনতা যুদ্ধের ঘোষণা এবং যুদ্ধের মাঠে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। সরকার ডেঙ্গু মোকাবিলায় ও অর্থনীতিতে ব্যর্থ হয়ে জিয়ার মাজার প্রসঙ্গে অপ্রাসঙ্গিক বিতর্কের অবতারণা করেছে। আওয়ামী লীগ প্রতারণা করে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চাইছে। জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানো সরকারের মূল উদ্দেশ্য। জিয়ার লাশ পাওয়ার পর তার পোস্টমর্টেম (ময়নাতদন্ত) করে সেই রিপোর্ট জাতিকে দেখানো হয়েছে। এরপর অন্য কোনও বিতর্ক থাকতে পারে না। মাজার-কবর-লাশ এসব নিয়ে রাজনীতি না করে কীভাবে মরণাপন্ন দেশ ও মানুষকে বাঁচাবে, সরকারকে এখন সেদিকে নজর দেওয়া উচিত।’
তিনি বলেন, ‘স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলগতভাবে যাওয়ার সিদ্ধান্ত এখনও বিএনপি নেয়নি। নেওয়া হলে জানানো হবে। নির্বাচন সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের আস্থা একদম চলে গেছে। সুষ্ঠু অবাধ নির্বাচন করতে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের বক্তব্য শুনলে মনে হয়, তিনি দলের মুখপাত্রের ভূমিকা পালন করছেন। এ কারণেই দেশে নির্বাচন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।’
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সল আমিন, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ প্রমুখ। উল্লেখ্য, গত ২ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সভায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান পদে তারেক রহমানকে দায়িত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়ার সমালোচনা করে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছিলেন, বিএনপির গঠনতন্ত্র মেনে তারেক রহমানকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।

সেপ্টেম্বর ০৭
০৬:০৪ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]