Daily Sunshine

নতুন সরকার ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে তালেবান

Share

সানশাইন ডেস্ক: আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর সরকার গঠনের বিষয়ে তড়িঘড়ি করেনি তালেবান। তারা বলেছিল, দেশ থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের পর বিষয়টি নিয়ে এগোবে। সে অনুযায়ী নতুন সরকার ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে তালেবান। তালেবানের এক নেতার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।
নতুন সরকারের ঘোষণা দিতে রাজধানী কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে বলে টুইটারে জানিয়েছেন তালেবান নেতা আহমাদুল্লাহ মুত্তাকি। এর আগে আফগানিস্তানের একটি বেসরকারি টেলিভিশন জানিয়েছিল, খুব শিগগির তালেবান সরকার ঘোষণা করা হবে।
নতুন সরকারের ওপর চূড়ান্ত নিয়ন্ত্রণ থাকতে পারে তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুনজাদার। গত মাসে রয়টার্সকে এমনটাই জানিয়েছেন তালেবানের এক নেতা। তাঁর অধীনে একজন প্রেসিডেন্ট থাকতে পারেন। আখুনজাদার তিনজন ডেপুটি আছেন। তাঁদের একজন মোল্লা ইয়াকুব। তিনি তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা ওমরের ছেলে। মোল্লা ইয়াকুব বর্তমানে তালেবানের সামরিক শাখার দায়িত্বে আছেন। আফগান সরকারে তাঁর বড় ভূমিকা থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকতে পারেন আরেক ডেপুটি সিরাজুদ্দিন হাক্কানি। হাক্কানি নেটওয়ার্কের নেতৃত্বে আছেন তিনি। এ ছাড়া তালেবানের অন্যতম সহপ্রতিষ্ঠাতা মোল্লা আবদুল গনি বারাদারও সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে পারেন। কাতারে তালেবানের রাজনৈতিক দপ্তরের উপপ্রধান শের আব্বাস স্ট্যানেকজাই বিবিসি পশতুকে শিগগির সরকার গঠনের ইঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি জানান, দুই দিনের মধ্যেই তালেবান সরকার ঘোষণা হতে পারে।
শের আব্বাস বলেন, সরকারের নিম্ন পর্যায়সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নারীরা কাজ করতে পারবেন। তবে মন্ত্রিসভা বা শীর্ষস্থানীয় পদে নারীরা না-ও থাকতে পারেন। পাশাপাশি গত দুই দশকে যাঁরা সরকারে ছিলেন, তাঁদের এ সরকারে নেওয়া হবে না। গত ১৫ আগস্ট কাবুলের পতন হয়। আফগানিস্তানের ক্ষমতা তালেবানের হাতে যায়। এবার তারা আগেরবারের চেয়ে নিজেদের শাসননীতিতে নমনীয়তা আনার ইঙ্গিত দেয়। তালেবান তাদের প্রতিশ্রুতি রাখবে কি না, তা নিয়ে পশ্চিমাদের মধ্যে সন্দেহ আছে।

সেপ্টেম্বর ০৩
০৫:৫৪ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]