Daily Sunshine

আফগানিস্তান ত্যাগ করাই ছিল সবচেয়ে ভালো উপায়: বাইডেন

Share

সানশাইন ডেস্ক: প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘতম যুদ্ধ শেষ করার পাশাপাশি সামরিক শক্তির মাধ্যমে অন্য দেশকে পুনর্গঠন করার কয়েক দশকের ব্যর্থ প্রচেষ্টার অবসান ঘটানোর উপায়গুলোর মধ্যে সবচেয়ে উত্তম ছিল আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার। কাবুল থেকে উত্তেজনাপূর্ণ সেনা প্রত্যাহার নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে তিনি এ মন্তব্য করেছেন বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।
আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বিশৃঙ্খলভাবে বের হয়ে আসাকে তিনি লজিস্টিকাল সাফল্য বলে বর্ণনা করেছেন। প্রত্যাহার কয়েক সপ্তাহ আগে শুরু করলেও এমন আগোছালো হতে পারত এবং দেশটিতে থাকতে গেলে আরও মার্কিন সৈন্য পাঠাতে হতো বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। হোয়াইট হাউস থেকে দেওয়া বক্তৃতায় তিনি বলেন, “আমি এই চিরকালের যুদ্ধকে আর বাড়াতাম না।”
গত মাসে বিদ্যুৎ গতিতে আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেওয়া তালেবান মঙ্গলবারের প্রথম প্রহরে শূন্যে গুলি ছুড়ে মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়া উদযাপন করে। পরে সকালে তারা যুক্তরাষ্ট্র ও নেটোর পতাকা আচ্ছাদিত কফিন নিয়ে বিজয় মিছিল করে। সোমবার আফগানিস্তান থেকে মার্কিন বাহিনীর চূড়ান্ত প্রত্যাহারের পর তার প্রথম মন্তব্যে বাইডেন বলেন, এ পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ হাজার মার্কিন নাগরিককে সরিয়ে আনা হয়েছে এবং বাকি ১০০ থেকে ২০০ জন চাইলে দেশটি যেন ছাড়তে পারে তা নিশ্চিত করতে তালেবানকে চাপে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।
তিনি বলেন, ওয়াশিংটন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি সৃষ্টি করা জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোকে লক্ষ্যস্থল করা অব্যাহত রাখবে কিন্তু কখনোই গণতন্ত্র ছিল না এমন দেশগুলোতে সামরিক শক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক সমাজ গড়ার আর চেষ্টা করবে না। “আফগানিস্তানের বিষয়ে এই সিদ্ধান্ত শুধু আফগানিস্তানকে নিয়ে নয়, এটি অন্য দেশকে পুনর্গঠনের জন্য বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালানোর যুগের সমাপ্তির বিষয়েও,” বলেছেন তিনি।
বাইডেন বলেন, আফগানিস্তানে আর যে একমাত্র বিকল্প ছিল তা হল লড়াই আরও বাড়ানোর পদক্ষেপ নেওয়া এবং যে যুদ্ধ অনেক আগেই শেষ হওয়ার কথা ছিল তা অব্যাহত রাখা। “অনেকের পরামর্শ মতো জুন অথবা জুলাইয়ে প্রত্যাহার শুরু করলে তা শুধু তালেবানের জয় তরান্বিত করতো,” বলেছেন তিনি।
২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের দীর্ঘতম লড়াই শুরুর আগে আফগানিস্তানের যত এলাকা তালেবানের নিয়ন্ত্রণে ছিল প্রায় ২০ বছর পর এখন তার চেয়ে বেশি আছে। এই যুদ্ধে মার্কিন সামরিক বাহিনীর প্রায় আড়াই হাজার সেনা ও হিসাব অনুযায়ী দুই লাখ ৪০ হাজার আফগান নিহত এবং প্রায় দুই ট্রিলিয়ন ডলার ব্যায় হয়েছে। ১৫ অগাস্ট তালেবান আফগানিস্তানের রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার আগের দিন থেকে শুরু করে পরবর্তী দুই সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্ররা কাবুল থেকে এক লাখ ২৩ হাজারেরও বেশি মানুষকে আকাশপথে সরিয়ে আনে। কিন্তু আফগান যুদ্ধ চলাকালে দেশটির যেসব নাগরিকরা পশ্চিমা বাহিনীগুলোকে সাহায্য করার কারণে ঝুঁকিতে আছেন তাদের অনেকেই পেছনে পড়ে থাকেন।

সেপ্টেম্বর ০২
০৪:২৯ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]