Daily Sunshine

এখন লক্ষ্য কাবুল বিমানবন্দরের ‘দ্রুত হস্তান্তর’

Share

সানশাইন ডেস্ক: কাবুল বিমাবন্দরের হস্তান্তর প্রক্রিয়া যত দ্রুত সম্ভব নিশ্চিত করাই এখন আফগানিস্তানের নতুন শাসক দল তালেবান ও দেশটি ছেড়ে যাওয়া মার্কিন বাহিনীর লক্ষ্য বলে মন্তব্য করেছেন এক তালেবান কর্মকর্তা। রোববার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে নাম না প্রকাশ করার শর্তে একথা জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।
তিনি বলেছেন, “কাবুল বিমানবন্দরের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে যুক্তরাষ্ট্রের চূড়ান্ত ইঙ্গিতের অপেক্ষায় আছি আমরা।” চলতি মাসের শুরুতে বিদ্যুৎগতিতে একের পর প্রাদেশিক রাজধানী দখলের পর ১৫ অগাস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া তালেবানের এ কর্মকর্তা জানান, বিমানবন্দরের দায়িত্ব নিতে তাদের কারিগরি বিশেষজ্ঞ ও দক্ষ প্রকৌশলীদের একটি দল প্রস্তুত রয়েছে।
কয়েকদিন আগে তুরস্কের কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, তালেবান তাদের কাছে কাবুল বিমানবন্দর পরিচালনায় সহায়তা চেয়েছে। এক্ষেত্রে তুর্কি কর্মীদের নিরাপত্তায় আঙ্কারা আফগানিস্তানে সেনা উপস্থিতি বহাল রাখার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করলেও তালেবান নেতারা তাতে তাৎক্ষণিকভাবে সম্মতি দেননি। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা চলছে বলে সেসময় জানিয়েছিলেন তুরস্কের কর্মকর্তারা। শেষ পর্যন্ত তাদের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে কিনা, নাকি তুরস্কের সাহায্য ছাড়াই তালেবান কাবুল বিমানবন্দর পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
আফগানিস্তানে দুই দশকের ভূমিকার ইতি ঘটিয়ে কাবুল থেকে চলে যাওয়ার চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীগুলো। সেনাদের প্রত্যাহারের আগে এখন কাবুল বিমানবন্দরে থাকা অবশিষ্ট এক হাজারের কিছু বেশি বেসামরিককে সরিয়ে নেওয়ার কাজ চলছে বলে রোববার পশ্চিমা এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানিয়েছেন।
পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তা জানান, সরিয়ে নেওয়ার এই প্রক্রিয়া শেষ করার তারিখ ও সময়ের বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তিনি মঙ্গলবারের (৩১ অগাস্ট) মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা সরিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি মেনে চলবেন। মার্কিন সেনাদের কাবুল বিমানবন্দর ছাড়ার মধ্যেই সেখানে আরেকটি জঙ্গি হামলার জোর সম্ভাবনা আছে বলেও বাইডেন সতর্ক করেছেন।
কাবুল বিমানবন্দরের পরিস্থিতি ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ হয়ে আছে আর সামরিক কমান্ডাররা জানিয়েছেন পরবর্তী ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে আরেকটি হামলা হওয়ার জোর সম্ভাবনা আছে, বলেছেন তিনি। রোববার সকালে কাবুলের যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসও মার্কিন নাগরিকদের ‘নির্দিষ্ট, বিশ্বাসযোগ্য হুমকির’ বিষয়ে সতর্ক করেছে। এর আগে বৃহস্পতিবার কাবুল বিমানবন্দরের কাছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আত্মঘাতী বোমা হামলায় ১৩ মার্কিন সৈন্য ও আরও প্রায় ১৭০ জন নিহত হন।

আগস্ট ৩০
০৬:২১ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]