Daily Sunshine

লর্ডসে রাহুলের দারুণ সেঞ্চুরি

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: দীর্ঘ দুই বছর ছিলেন টেস্ট দলের বাইরে। নিয়মিত ওপেনাররা থাকলে ইংল্যান্ডের এই সফরেও হয়ত একাদশে মিলত না জায়গা। তবে সুযোগ দুই হাতে লুফে নিচ্ছেন লোকেশ রাহুল। ট্রেন্ট ব্রিজে ফেরার ম্যাচে ফিফটির পর লর্ডসে করছেন দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি। তার ব্যাটে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে বড় সংগ্রহের ভিত পেয়ে গেছে ভারত।
লর্ডসে ৩ উইকেটে ২৭৬ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করেছে সফরকারীরা। ১২৭ রানে অপরাজিত আছেন রাহুল। তার সঙ্গে উইকেটে আছেন অজিঙ্কা রাহানে। শেষ বেলায় বিরাট কোহলির উইকেট স্বস্তি হয়ে এসেছে ইংল্যান্ডের জন্য। সিরিজ শুরুর আগে চোটের জন্য ছিটকে যান শুবমান গিল। আরেক ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের কনকাশনের লক্ষণ থাকায় ২০১৯ সালের অগাস্টের পর টেস্ট দলে আসেন রাহুল। ফেরার ম্যাচে সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়ে থামেন ৮৪ রানে।
ছন্দ ধরে রাখলেন তিনি পরের টেস্টেও। প্রথম ইনিংসেই নিজেকে মেলে ধরে করলেন ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি, ইংল্যান্ডের মাটিতে দ্বিতীয়। বৃষ্টির জন্য খেলা শুরু হয় আধ ঘণ্টা দেরিতে। মাঝেও হানা দেয় একবার। তবে পুরো ৯০ ওভার খেলা হয়েছে প্রথম দিনে। মেঘলা আবহাওয়া ও ঘাসের ছোঁয়া থাকা উইকেটের কথা মাথায় রেখে টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় ইংল্যান্ড। কন্ডিশনের সহায়তা কাজে লাগিয়ে ভারতীয় ওপেনারদের কঠিন পরীক্ষায় ফেলে তারা।
ত্রয়োদশ ওভারের আগ পর্যন্ত ছিল না কোনো বাউন্ডারি। ওই সময় ভারতের রান ছিল মাত্র ১৪। তবে ধৈর্যহারা হননি রোহিত শর্মা ও রাহুল। সাবধানী ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দেন কঠিন সময়টুকু পার করে দেওয়ার দিকে। স্যাম কারানের ওভারে রোহিতের ব্যাটে আসে প্রথম বাউন্ডারি। কারানের পরের ওভারেই ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান মারেন চার বাউন্ডারি। বাড়তে থাকে ভারতের রান।
কয়েক ওভার পরেই হানা দেয় বৃষ্টি। এক ঘণ্টা অপেক্ষার পর শুরু হয় দ্বিতীয় সেশনের খেলা। নিজেদের মতোই খেলতে থাকেন রোহিত-রাহুল। তাদের জুটি শতরান স্পর্শ করে ১৯৮ বলে। দারুণ খেলতে থাকা রাহিত ৮৩ বলে ফিফটি তুলে নেন। ভারত ওপেনার এগিয়ে যেতে থাকেন দেশের বাইরে নিজের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু তার সেই পথচলায় বাধা হয়ে দাঁড়ান জেমস অ্যান্ডারসন।
দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে অভিজ্ঞ এই পেসার বোল্ড করে দেন ৮৩ রান করা রোহিতকে। ১১ চার ও এক ছক্কায় এটাই রোহিতের দেশের বাইরে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। তার বিদায়ে ভাঙে ১২৬ রানের উদ্বোধনী জুটি। এশিয়ার বাইরে ২০১০ সালের পর শুরুর জুটিতে এটিই ভারতের প্রথম শতরান। থিতু হওয়ার চেষ্টায় ব্যর্থ হন চেতেশ্বর পুজারাও। চোট শঙ্কাকে পেছনে ফেলে এই ম্যাচে খেলা অ্যান্ডারসনই ফেরান ভারতের ব্যাটিং স্তম্ভের এই অস্ত্রকে।
এরপর প্রতিরোধ গড়েন কোহলি ও রাহুল। শুরু থেকে দেখেশুনে খেলতে থাকা ভারত ওপেনার ফিফটি তুলে নেন ১৩৭ বলে। প্রথম ম্যাচে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ পাওয়া অধিনায়ক শুরু করেন সাবধানে। ধীরে ধীরে এগোতে থাকেন ফিফটির দিকে।
ফর্মে থাকা রাহুল কাঙ্ক্ষিত তিন অঙ্ক স্পর্শ করেন ২১২ বলে। ২০১৮ সালের পর সেঞ্চুরি পেলেন তিনি। সবশেষটিও ইংল্যান্ডের মাটিতেই। কিন্তু ফিফটির দেখা পাননি কোহলি। তাকে এবার হতাশ করেন অলিভার রবিনসন। প্রথম স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ভারত অধিনায়ক ফিরেন ৪২ রান করে। ভাঙে ১১৭ রানের জুটি। দিনের বাকিটুকু রাহানেকে নিয়ে সাবধানে পার করে দেন রাহুল। ১২ চার ও ১ ছক্কায় ১২৭ রানে খেলছেন তিনি।

আগস্ট ১৪
০৫:২৫ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]