Daily Sunshine

রাজশাহীতে করোনামুক্ত হয়েও মৃত্যু ১৫%

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে কোভিড ইউনিটে চিকিৎসাধীন রোগিরা করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরও হাসপাতাল ছাড়তে পারছেন না। আর ছাড়লেও আবার ফরে আসতে হচ্ছে।
গত তিন দিনের (১০ থেকে ১২ আগস্ট পর্যন্ত) হিসেবে দেখা গেছে, এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগির ১৮ দশমিক ৩৬ শতাংশ রোগি করোনামুক্ত হওয়ার পরও শারীরিক নানা স্বাস্থ্য জটিলতায় ভুগছেন। আর করোনা ইউনিটে নেগেটিভ হওয়ার পর মৃত্যু হার ১৫ শতাংশ। এছাড়াও আইসিইউতে যাওয়া রোগিদের মধ্যে করোনামুক্ত রোগি ১৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ।
চিকিৎসকেরা বলছেন, ডেল্টা ভেরিয়েন্টে (ভারতীয় ধরণ) ‘পোস্ট কোভিড’ জটিলতা যেমন বাড়ছে; তেমন বাড়ছে হাসপাতালে এ ধরণের রোগি ও মৃত্যুর সংখ্যা। যারা পোস্ট কোভিড জটিলতায় ভুগছেন তাদের বেশীর ভাগই করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শুরু করতে দেরি করার কারণে।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউর ইনচার্জ আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, করোনা নেগেটিভ হওয়ার পর শারীরিক নানা জটিলতা নিয়ে আসা রোগির সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। আইসিইউতেও আগের চেয়ে এই রোগি বেশি হচ্ছে।
রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, করোনা থেকে সুস্থ হয়ে বাড়িতে গিয়েও অনেক রোগি ফিরে আসছেন। তাদের অনেকেরই হৃদরোগ ও উচ্চ রক্তচাপ ছাড়াও পাকস্থলী ও কিডনি অকার্যকরসহ বিভিন্ন ধরনের জটিলতা দেখা দিচ্ছে। এটা নতুন ধরণের রোগ। করোনা যা করার, প্রথম সাত দিনের মধ্যেই করে ফেলছে। করোনা দেহের অনেক কিছুই অচল করে দিয়ে চলে যাচ্ছে। তারপর যা হওয়ার তা-ই হচ্ছে।
হাসপাতালের কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্য মতে, সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গেল ২৪ ঘন্টায় এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগি ভর্তি আছেন ৩৪২ জন। এর মধ্যে করোনা নেগেটিভ হয়ে পরবর্তি স্বাস্থ্য জটিলতায় চিকিৎসাধীন ৬৫ জন।
এ দিন আইসিইউতে ভর্তি ২০ জনের মধ্যে তিনজন করোনামুক্ত হওয়া রোগি। আর করোনা ইউনিটে মারা যাওয়া নয়জনের মধ্যে একজন করোনা নেগেটিভ হয়েও পরবর্তি স্বাস্থ্য জটিলতায় চিকিৎসাধীন ছিলেন।
এর আগের দিন গত বুধবার এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগি ভর্তি ছিলেন ৩৬৩ জন। করোনামুক্ত হয়েও পরবর্তী স্বাস্থ্য জটিলাতায় চিকিৎসাধীন ৬৬ জন। এছাড়াও আইসিইউতে ২০ জনের মধ্যে চারজন করোনা নেগেটিভ রোগি। আর এ দিন মারা যাওয়া ১০ জনের মধ্যে তিনজন করোনামুক্ত হওয়ার পর মৃত্যু হয়।
এছাড়াও গত মঙ্গলবার করোনা ইউনিটে রোগি ভর্তি ছিলেন ৩৮০ জন। এর মধ্যে করোনামুক্ত হয়েও পরবর্তী স্বাস্থ্য জটিলাতায় চিকিৎসাধীন ৬৮ জন। এছাড়াও আইসিইউতে ২০ জনের মধ্যে চারজন করোনামুক্ত হওয়া রোগি। আর এ দিন মারা যাওয়া ২১ জনের মধ্যে দুইজন করোনামুক্ত হওয়ার পর মৃত্যু হয়।
এদিকে, চলতে মাসের ১২ দিনে করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ১৭৯ জন। যাদের মধ্যে করোনামুক্ত হয়ে পরবর্তি শারীরিক স্বাস্থ্য জটিলতায় মারা যান ২৪ জন। এ ধারণের মৃত্যুর হার ১৩ দশমিক ৪১ শতাংশ।
এর আগে গত জুলাই মাসে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা যান ৫৩১ জন। যাদের মধ্যে ৩১ জন মারা যান করোনামুক্ত হয়ে পরবর্তি স্বাস্থ্য জটিলতায়। মৃত্যু হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। আর জুন মাসে করোনা ইউনিটে মারা যাওয়া ৩৬৯ জনের মধ্যে করোনা নেগেটিভ হওয়া সাতজন। মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৯০ শতাংশ।

আগস্ট ১৩
০৪:৫২ ২০২১

আরও খবর

[TheChamp-FB-Comments]