Daily Sunshine

গোদাগাড়ীতে অবৈধ বালু কারবারে বেহাল সড়ক

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও পরিবহনে বেহাল অবস্থা সড়কের। সড়কজুড়ে খানাখন্দকে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে উপজেলার সারাংপুর সড়কটি। প্রশাসনের নাকের ডোগায় অবৈধ বালু উত্তোলন ও সড়ক ভেঙ্গে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়লে দেখেও দেখছে না তারা। এ নিয়ে স্থানীয়রা একাধিক অভিযোগ দিলেও নিরব প্রশাসন।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার আলাতলি ইউনিয়নের রানীনগর মৌজার বালুমহাল ইজারা দেয় জেলা প্রশাসন। চাঁপাইনবাবগঞ্জের মনির হোসেন বকুল নামের এক বালু ব্যবসায়ী বালুমহালটি ইজারা নেন। যা রাজশাহীর গোদাগাড়ী থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দুরে।
ওই বালু মহালের নামে একটি সিন্ডিকেট রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার সারাংপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, মজুদ এবং সেখান থেকে পরিবহন করছে। স্থানীয় প্রভাবশালী আনারুল বিশ্বাস ও তার ছেলে রোমেন বিশ্বাস এই বালু সিন্ডিকেটের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। যাদের কাছে এলাকাবাসীসহ প্রশাসনও অসহায় বলে অভিযোগ তুলেছেন ভূক্তভোগিরা।
সারাংপুর এলাকার পদ্মা থেকে প্রতিদিন অবৈধভাবে উত্তোলন করা হচ্ছে বালু। এতে নদী ভাঙনের হুমকির মুখে পড়েছে কয়েকটি গ্রাম। এছাড়াও ভারি ট্রাক-লরি ও বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচলের কারণে এলাকার সড়কগুলো ভেঙেচুরে একাকার হয়ে গেছে।
দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা বালু পরিবহনের কারণে এলাকার জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বালু ছড়িয়ে-ছিটিয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাটির মানুষের বসবাস করা দায় হয়ে পড়েছে। আক্রান্ত হচ্ছে নানা জটিল অসুখে। এছাড়া সড়কগুলো নষ্ট হয়ে বিপুল আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে গোদাগাড়ী প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।
গোদাগাড়ী পৌরসভার কাউন্সিলর আব্দুল জব্বার বলেন, প্রশাসনের নাকের ডোগায় এই অবৈধ বালু কারবারে তারা অতিষ্ঠ। অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দেয়া হলেও তারা কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। অবৈধ এই বালু কারবারের সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে এলাকার মানুষ।
এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে গোদাগাড়ী উপজেলার সহকারি কমিশনারকে (ভূমি) পাওয়া যায়নি।

জুন ২০
০৫:০৭ ২০২১

আরও খবর