Daily Sunshine

ক্রিকেটাররা বিশ্রাম চাইলে ‘ভেবে দেখবেন’ নির্বাচকরা

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: জিম্বাবুয়ে সফরে বাংলাদেশ জাতীয় দলের নিয়মিত ক্রিকেটাররা বিশ্রাম চাইলে বিবেচনা করার কথা জানালেন নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক। পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে আগামী ২৯ জুন জিম্বাবুয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশের। সেখানে একটি টেস্ট এবং তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে তারা।
দলে নিয়মিত, এমন কেউ কিংবা সিনিয়রদের কেউ যেতে রাজি না হলে তা ভেবে দেখা হবে জানালেন রাজ্জাক। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘যদি কেউ সফরে না গিয়ে বিশ্রামে থাকতে চায়, অবশ্যই আমরা ভেবে দেখবো। আমার জানা মতে, এখনও কেউ বলেনি যে সে থাকতে পারবে না। কেউ বললে আমরা চিন্তা করার সময় পাবো।’
করোনা পরবর্তী পরিস্থিতি ও বায়ো-বাবলে থাকার কারণে কারও কারও বিশ্রাম চাওয়া স্বাভাবিক বলে রাজ্জাক মনে করছেন। তার ভাষ্য, ‘সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হল এখন বায়ো-বাবলে থাকা। যারা জাতীয় দলে নিয়মিত খেলছে তাদের কথা একটু চিন্তা করেনৃ তারা কতদিন বাইরে! হিসেব করে দেখেন আসলেই কঠিন। আমরা শুধু পারফরম্যান্স দেখতে চেষ্টা করি। কিন্তু এটাও বিবেচনায় রাখা উচিত, যারা ক্রিকেট নিয়ে কথা বলে তাদের এসব হিসেব করা উচিত। কারণ খুবই স্বাভাবিকভাবে এরকম একটা চিন্তা করা হচ্ছে যেন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলানো ও বিশ্রাম দেওয়া হয়। আরেকটি বিষয় হলো, বোর্ড যদি অনুমতি দেয় পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে একসঙ্গে থাকা।’
তবে সিরিজটা জিম্বাবুয়ের মাটিতে হচ্ছে বলে বিশ্রামের কথা ওঠায় দ্বিধান্বিত রাজ্জাক, ‘দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ে সহজ প্রতিপক্ষ না, বাংলাদেশের মাটিতে হলে বলতাম তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ। তাই আমি কোনোভাবেই এরসঙ্গে একমত হবো না যে, সিনিয়রদের বিশ্রাম দেওয়া উচিত।’ জিম্বাবুয়ে বলে হেলাফেলা না করে তাদের শক্ত প্রতিপক্ষ হিসেবে মূল্যায়ন করার পরামর্শ তার, ‘আমাদের কাছে প্রতেকটা সিরিজ সমান গুরুত্বপূর্ণ, প্রত্যেক খেলোয়াড়ের জন্য। এখন আপনি যদি স্কটল্যান্ডের সঙ্গে খেলেন একই, আপনি অস্ট্রেলিয়ার সাথে খেললেও একই হবে। কারণ কী? কারণ হল আপনি কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে জিতলে দুই ম্যাচের সমান পয়েন্ট দেওয়া হবে না। একটা ফিফটি করলে সেটা একশ হবে না। সবচেয়ে বড় কথা খেলোয়াড়দের সবার খেলতেই কিন্তু কষ্ট হয়। এজন্য বলবো, প্রত্যেক সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ।’

জুন ০৭
০৫:২১ ২০২১

আরও খবর