Daily Sunshine

ঘরে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর গলাকাটা লাশ, রক্তে গড়াগড়ি শিশুর

Share

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি: নাটোরের বড়াইগ্রামে শাহানুর বেগম (৩৫) নামে ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে নিজ ঘরে গলা ও হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাতে উপজেলার জোয়াড়ী ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাহানুর ওই গ্রামের চা দোকানি রাশেদুল ইসলাম রাশেদের স্ত্রী। এ ঘটনায় পুলিশ নিহতের শাশুড়ি রশেনা বেগম ও দেবর আব্দুর রশিদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।
খবর পেয়ে পিবিআই নাটোরের পুলিশ সুপার শরীফ উদ্দিন, বড়াইগ্রাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খায়রুল ইসলাম, বড়াইগ্রাম থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
স্থানীয়রা জানান, চলমান লকডাউনে ব্যবসায় মন্দা যাওয়ায় কয়েকদিন আগে শাহানুর বেগমের স্বামী রাশেদ কাজের সন্ধানে ঈশ^রদী যান। এ সময় শাহানুর তিন সন্তানসহ বাড়িতেই থাকতেন।
বুধবার রাতে ঘটনাস্থলের পাশেই গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য মাদারের গান চলছিল। শাহানুরের দুই সন্তানকে নিয়ে শাশুড়িসহ পরিবারের সবাই গানের অনুষ্ঠানে যাওয়ায় শিশু সন্তান নিয়ে নিজ ঘরেই ঘুমিয়েছিলেন তিনি। ফাঁকা বাড়িতে একা থাকার সুযোগে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।
রাত সাড়ে ১২টার দিকে গানের অনুষ্ঠান থেকে বাড়িতে ফিরে নিহতের ৮ বছরের শিশুকন্যা মায়ের রক্তাক্ত লাশ দেখে চিৎকার করলে পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে আসেন। এ সময় নিহতের দেড়বছর বয়সী অন্য শিশুটি মায়ের পাশে রক্তে গড়াগড়ি খাচ্ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে।
এ ব্যাপারে নিহত শাহানুর বেগমের ভাই নুর ইসলাম জানান, সম্প্রতি তার বোন জামাই পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন বলে তিনি শুনেছেন। এ ঘটনার জের ধরেও এ হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে পারে।
বড়াইগ্রাম থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। কি কারণে, কারা এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তা তদন্ত করে পরে জানানো হবে।

জুন ০৪
০৭:১৪ ২০২১

আরও খবর