Daily Sunshine

রামেকের করোনা ইউনিটে একদিনে ১২ মৃত্যু

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একদিনে সর্বোচ্চ ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুর থেকে রোববার দুপুর পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড ও আইসিইউতে তারা মারা যান বলে জানান রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার শামীম ইয়াজদানী।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় যে ১২ জন মারা গেছে তাদের মধ্যে ৮ জনের করোনা পজিটিভ। এদের মধ্যে আইসিইউতে মারা গেছেন তিনজন। বাকি চারজনের করোনা উপসর্গ ছিল। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার আগেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। নিহতদের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাতজন রয়েছেন। বাকির পাঁচজনের মধ্যে রাজশাহীর দুইজন, নওগাঁর দুইজন ও নাটোরের একজন। এ নিয়ে গত ছয়দিনে রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে মোট ৫১ জন।
হাসপাতাল পরিচালক আরো জানান, রোববার দুপুর পর্যন্ত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিট ও আইসিইউতে ২০৪ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। যার মধ্যে পজেটিভ রোগী ৭৫ জন। এদের মধ্যে চাঁপাইনবাগঞ্জের ৯৩ জন, রাজশাহীর ৮৪ জন, নাটোরের ১০ জন, নওগাঁর ৭ জন, পাবনার ৩ জন, কুষ্টিয়ার ৩ জন। এদের মধ্যে হাসপাতালের করোনা ইউনিটের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ১৫ জন।
এদিকে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনার নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭১ শতাংশে। রোববার রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করে এ হার শনাক্ত হয়।
এ ল্যাবে ৬৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। অর্থাৎ নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার দাঁড়ায় ৭১ দশমিক ৪৩ শতাংশ। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাব ইনচার্জ ডা. সাবেরা গুল নাহার।
তিনি জানান, ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় রাজশাহীর ২৮৭ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষায় ৯০ জনের পজিটিভ শনাক্ত হয়। নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৩১ শতাংশ। এছাড়া নওগাঁর ১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।অর্থাৎ রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁর ৩৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৪৩ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে।
অপরদিকে, রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩৫ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে নতুন করে সংক্রমণ ধরা পড়ে ৩৩৭ জনের। এটি বিভাগে এক দিনে গত প্রায় দেড় বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ শনাক্ত রোগী। এ নিয়ে বিভাগে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩৫ হাজার ১৭৫।
নতুন করে তিনজন মারা গেছেন। এ নিয়ে বিভাগে মৃত্যু হলো ৫৫০ জনের। রোববার দুপুরে পাঠানো রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নাজমা আক্তার স্বাক্ষরিত প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে পাঠানো প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, রাজশাহী বিভাগে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ১২ এপ্রিল। এরপর গত বছরের ২৯ জুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়ায়। এভাবে ২০ জুলাই ১০ হাজার, ৪ আগস্ট ১৫ হাজার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০ হাজার, চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি ২৫ হাজার এবং ১৯ এপ্রিল বিভাগে ৩০ হাজার ছাড়ায় করোনা রোগীর সংখ্যা। এ সংখ্যা ৩৫ হাজার ছাড়াল আজ রোববার।
রোববার পাঠানো প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার সকাল আটটা থেকে রোববার সকাল আটটা পর্যন্ত বিভাগের ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় রাজশাহী বিভাগে ৩৩৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটি গত দেড় বছরে এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে বিভাগে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩৫ হাজার ১৭৫। এর আগে ২৮ মে বিভাগে সর্বোচ্চ ২৭৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে করোনার নতুন ‘হটস্পট’ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ১৬১ জন। এ ছাড়া রাজশাহীতে ৮২ জন, নওগাঁয় ৪, নাটোরে ২৩, জয়পুরহাটে ২১, বগুড়ায় ২২, সিরাজগঞ্জে ৩ ও পাবনায় ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।
বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন তিনজন। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রাজশাহী, নওগাঁ ও নাটোরে একজন করে রয়েছেন। বিভাগে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৫৫০ জন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৩১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়া জেলায়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮৪ জন মারা গেছেন রাজশাহীতে। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩২ জন, নওগাঁয় ৪০, নাটোরে ২৪, জয়পুরহাটে ১১, সিরাজগঞ্জে ২৪ ও পাবনায় ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
প্রতিবেদন অনুযায়ী বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা কমেছে। এদিন মাত্র ৫১ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে বিভাগে মোট সুস্থ হয়েছেন ৩১ হাজার ৩৫১ জন।
রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, তাঁরা করোনার সংক্রমণরোধে সব ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন। উপজেলা পর্যায়ে ব্যাপক হারে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার হার বাড়িয়েছেন। তিনি সবাইকে মাস্ক ও স্বাস্থ্যবিধিসহ সরকারি বিধিনিষেধ মানার জন্য অনুরোধ করেছেন।

মে ৩১
০৫:০৩ ২০২১

আরও খবর