Daily Sunshine

রাজশাহীতে কমেছে সংক্রমণ বেড়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে

Share

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর দুইটি ল্যাবে পরীক্ষার পর আরও ১৯০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীর ৬৮ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১০৭ জন ও নাটোরের ১৫ জন। শনিবার রাতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এ তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি জানান, শনিবার রাজশাহীতে ৪৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষ হয়েছে। এর মধ্যে পজেটিভ এসেছে ১৯০ জনের। এর মধ্যে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩৭৭ জনের নমুনা পরীক্ষ করে ১৭২ জনের পজেটিভ। আর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে ৫৮ জনের নমুনা পরীক্ষ করে ১৮ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে।
ডা. সাইফুল ফেরদৌস আরও জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষ করে ১০৭টি করোনা পজেটিভ এসেছে। এখানে শনাক্তের হার ৫৭ শতাংশ। অপরদিকে রাজশাহী জেলার ১৮৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬৮ জনের করোনা পজেটিভ আসে। এখনো শনাক্তের হার ৩৭ শতাংশ। এছাড়াও নাটোরের ৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৫ জনের শরীরে কনোনাভাইরাস পাওয়া গেছে।
উল্লেখ্য, গত ২৪ মে রাজশাহীতে করোনা সংক্রমণের হার ছিল ৩৩ শতাংশ, ২৫ মে ২২.৬৮ শতাংশ, ২৬ মে ১৮.০৩ শতাংশ, ২৭ মে ৪২ শতাংশ এবং ২৮ মে ৫২.৫ শতাংশ।
এদিকে, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আরও সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুর থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড ও আইসিইউতে তারা মারা যান। শনিবার দুপুরে এ তথ্য জানান রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার শামীম ইয়াজদানী।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় যে সাতজন মারা গেছে তাদের মধ্যে তিনজনের করোনা পজিটিভ। বাকি চারজনের করোনা উপসর্গ ছিল। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার আগেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। নিহতদের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুইজন, রাজশাহীর তানোরের দুইজন এবং নওগাঁ, সিরাজগঞ্জ ও পাবনার একজন করে মোট তিনজন। এ নিয়ে গত পাঁচদিনে রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছে মোট ৩৯ জন।
হাসপাতাল পরিচালক আরো জানান, শনিবার দুপুর পর্যন্ত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৯১ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে চাঁপাইনবাগঞ্জের ৯৪ জন, রাজশাহীর ৭২ জন, নাটোরের ৯ জন, নওগাঁর ৬ জন, পাবনার ৪ জন, সিরাগঞ্জের ২ জন ও কুষ্টিয়ার ৪ জন। এদের মধ্যে করোনা আইউসিইউতে রয়েছেন ১২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন ৩২ জন। এর মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৫ জন।
শামীম ইয়াজদানী জানান, মূলত: ঈদের পর থেকে করোনা আক্রান্ত রোগি ও মৃত্যু বাড়তে থাকে। গত ১৬ মে থেকে ২৯ মে দুপুর পর্যন্ত এ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩৩ জন, চাঁপাইনবাগঞ্জের সীমান্তবর্তী উপজেলা গোদাগাড়ীর ১০ জনসহ রাজশাহী জেলার ২৪ জন, পাবনার দুইজন, কুষ্টিয়ার একজন ও নাটোরের একজন।
অপরদিকে, রাজশাহী বিভাগে করোনাভাইরাসে একদিনে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৮ মে) তাদের মৃত্যু হয়। শনিবার বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
এতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জে চারজন, রাজশাহীতে একজন, নওগাঁয় একজন এবং নাটোরে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগের আট জেলায় এ পর্যন্ত ৫৪৭ জনের মৃত্যু হলো।
এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৩১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বগুড়ায়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮৩ জন মারা গেছেন রাজশাহীতে। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩২ জন, নওগাঁয় ৩৯ জন, নাটোরে ২৩ জন, জয়পুরহাটে ১১ জন, সিরাজগঞ্জে ২৪ জন এবং পাবনায় ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে।
শুক্রবার বিভাগে নতুন ৬৫ জন রোগি শনাক্ত হয়েছেন। এ দিন বিভাগের ৬৬ জন করোনা রোগি সুস্থ হয়েছেন। বিভাগে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৮৩৮ জন। এদের মধ্যে ৩১ হাজার ৩০০ জন সুস্থ হয়েছেন। রাজশাহী বিভাগে এ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিন হাজার ৮৫৪ জন কোভিড-১৯ রোগি।

মে ৩০
০৫:৩৯ ২০২১

আরও খবর