Daily Sunshine

ঈশ্বরদীতে ব্যবসায়ীর মৃত্যু নিয়ে রহস্য, স্ত্রী ও ছোট ভাই আটক

Share

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি: পাবনার ঈশ্বরদীতে স্ত্রীর পরোকীয়ার জেরে শাকিল প্রামানিক (৩৫) নামের এক কাপড় ব্যবসায়ীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার সময় ঈশ্বরদী শহরের কলেজ রোডস্থ রূপনগর এলাকার ভাড়া বাসা থেকে ব্যবসায়ী শাকিলের মরদেহ উদ্ধার করে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।
নিহত শাকিল ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়নের পতিরাজপুর দুবলাচারা গ্রামের ইব্রাহিম প্রামানিকের ছেলে। শাকিল ঈশ্বরদী বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী ছিল। নিহতের স্বজনদের দাবি, শাকিলকে হত্যা করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মীম খাতুন (১৯) ও শাকিলের ছোট ভাই সাব্বিরকে (২৬) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, লাশ ময়নাতদন্ত করে শনিবার দুপুরে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, অনেক বিষয় সামনে নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। এখনও উল্লেখযোগ্য কোন ক্লু পাওয়া যায়নি। তাই ঘটনা সম্পর্কে এ মুহুর্তে বিস্তারিত কিছু বলা যাচ্ছে না।
শনিবার সকালে ঈশ্বরদী থানার ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী ও শাকিলের ছোট ভাই সাব্বিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।
নিহতের মামা মুলাডুলির ইউপি মেম্বার তারা মালিথা জানান, পতিরাজপুর গ্রামের নিজ বাড়ি ছেড়ে শাকিল প্রায় ১০ দিন আগে শহরের কলেজ রোডস্থ রুপনগর এলাকার ওই বাড়ির দোতালা ভাড়া নেন। এরপর থেকে তিনি স্ত্রীকে নিয়ে সেখানে বসবাস শুরু করেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভাগিনা শাকিলের ফোন থেকে তার স্ত্রী মীম তাকে জানান, শাকিল কি যেন খেয়েছে কথা বলছে না। এসময় তিনি দ্রুত বাড়িওয়ালার সহযোগিতায় পাশের হাসপাতালে নেয়ার জন্য অনুরোধ করেন।
তিনি আরও জানান, আমি দূরে থাকায় ওই এলাকার আত্মীয়-স্বজনকে ঘটনা জানালে তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে দেখেন স্ত্রী মীম শায়িত শাকিলকে সামনে নিয়ে বসে কান্নাকাটি করছেন। কিন্তু শাকিল তখন মৃত।
ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবীর জানান, বেশ কিছু ঘটনা সামনে নিয়ে ব্যাপক ভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। নিহতের স্ত্রী ও ছোট ভাইকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়েছে। ঘটনা সম্পর্কে এখনই কোনো কিছু বলা সম্ভব নয়।
তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একাধিক সুত্র জানায়, ঘটনার পর পুলিশ উপস্থিত হলে নিহত শাকিলের স্ত্রী মীম জানায়, কয়েকজন যুবক এসে শাকিলকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। সে সময় তাকেও চড়-থাপ্পড় মেরে বেঁধে রেখে যায়। সুত্রটি আরও জানায়, স্ত্রীর পরোকীয়ার বলি হলো শাকিল। হয়তো এমন কিছু শাকিল দেখে ফেলে ছিলো যার জন্য তাকে হত্যা করা হয়েছে।

মে ৩০
০৫:৩০ ২০২১

আরও খবর