Daily Sunshine

বাগমারায় পাটচাষে কৃষকের উৎসাহ

Share

মাহফুজুর রহমান প্রিন্স, বাগমারা: এ উপাজলায় বছর বছর পাটের আবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আবাদকৃত এসব পাট গাছ সবে দেড় ফিট থেকে দুই ফিট পর্যন্ত বেড়ে ওঠেছে। তাই এবার পাটের বাম্পার ফলনের আশা করছেন চাষীরা। এ উপজেলার কমবেশি সব ইউনিয়নেই পাটের আবাদ হয়ে থাকে। তবে পূর্ব বাগমারা অপেক্ষাকৃত নিচু এলাকা হওয়ায় সেখানে পাটের আবাদ কিছুটা বেশি হয় থাকে। তবে কৃষকরা বর্তমান পাটের বাজার দর অনুযায়ী উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে ভাল একটা লাভ পাবেন বলে আশা করছেন।
পাট চাষী সূত্রে জানা গেছে, পাটের বীজ বপনের সময় আবহাওয়া অনুকুলে না থাকলেও পরবর্তীতে সময় মত বৃষ্টিপাত হওয়াতে পাটের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে পাট গাছ এক দেড় হাত বেড়ে ওঠেছে। অনেকে এ পাট ক্ষেতে শেষবারের মত নিড়ানী দিচ্ছেন। বর্ষার পানি আসতে আসতে পাট গাছ আরো বড় হয়ে ওঠবে। বর্ষার পানি নেমে যাওয়ার সময় কৃষক পাট কাটা শুরু করে এবং ওই পানিতে জাগ (পচনী) দেয়।
উপজেলার কাচরীকোয়ালীপাড়া ও বাসুপাড়া ইউনিয়নের কয়েকজন পাট চাষীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, এক বিঘা জমিতে পাট চাষ বাবদ বীজ, সার, কীটনাশক, পরিচর্যা ও আনুসাঙ্গিক খরচসহ রোদে শুকিয়ে তা ঘরে তোলা পর্যন্ত ১৬ থেকে ১৮ হাজার টাকার মত খরচ হয়। এবছর তারা দুই জাতের পাটের আবাদ করেছেন।
উপজেলা কৃষি দপ্তর থেকে তাদেরকে পাট বীজসহ বিভিন্ন ভাবে পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেছে বলে তারা জানান। এলাকায় পাটের হাট হিসাবে তাহেরপুর হাট সর্বাধিক পরিচিত। সেখানে দূরদূরান্ত থেকে বেপারীরা এসে পাট কিনে নিয়ে যায়। এলাকার পাট চাষীদের মতে, তারা ধানের মত পাটের বাজারও সিন্ডিকেটের দখলে চলে যাওয়ার আশংকা প্রকাশ করছেন।
এক্ষেত্রে তারা সরকারি ভাবে পাটের দাম নির্ধারণ ও পাট ক্রয়ের উদ্যোগ গ্রহনের দাবীও জানান। তাদের মতে, বর্তমানে পলিথিন যে ভাবে মহামারী আকার ধারন করছে এবং যত্রতত্র ভাবে পলিথিনির ব্যবহার বাড়তে থাকায় পরিবেশ ক্রমশই বিষময় হয়ে ওঠছে। এ থেকে পরিত্রানের জন্য পাটের বহুমূখী ব্যবহার ছাড়া কোন বিকল্প নেই।
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রাজিবুর রহমান পাট একটি পরিবেশ বান্ধব উদ্ভিদ আখ্যায়িত করে বলেন, বাগামারা ও আশেপাশর এলাকায় পাটের হারানো ঐতিহ্য আবার ফিরতে শুরু করেছে। বিগত তিন বছরের ব্যবধানে এখানে ৫০০ হেক্টর জমিতে পাটের চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে। তার মতে, বর্তমান বাজার দরে পাট চাষ করে কৃষকের লোকসান হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

মে ২৬
০৬:০১ ২০২১

আরও খবর