Daily Sunshine

ছুটির দিনেও ‘মরিয়া’ সাকিব

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: ব্যাট-বলে সমানতালে পারফরম্যান্স করে বিশ্বকাপ মাতানোর পর নিষিদ্ধ ছিলেন একবছর। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে ফেরেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। তার বিশ্বকাপ কাঁপানো পারফরম্যান্সে বুঁদ হয়ে কলকাতা নাইটরাইডার্স কেনে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে। যেটা তার আইপিএল ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ মূল্য। কিন্তু সেই মূল্য দিতে পারেননি সাকিব আল হাসান। টানা তিন ম্যাচ খেলে ব্যাট হাতে ৩৮ বল হাতে ৩ উইকেট নিয়ে হারিয়েছেন জায়গা।
আইপিএল এখন অতীত। এবার মঞ্চ নিজেদের ডেরায়। প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। সাকিবও নিজেকে ফিরে পেতে মরিয়া। তীব্র গরমে কাঠ ফাটা রোদে ঘাম ঝরাচ্ছেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা। নিজের হারানো রুপ ফিরে পাওয়ার তাড়নায় ছুটে এসেছেন ছুটির দিনেও। সঙ্গে মুশফিকুর রহিম ও স্ট্যান্ডবাই তাইজুল ইসলাম থাকলেও রাসেল ডমিঙ্গোসহ কোচিং স্টাফের যত মনোযোগ যেন সাকিবকে ঘিরেই।
ঈদের পর মঙ্গলবার থেকে অনুশীলনে যোগ দেন সাকিব। কিন্তু বেরসিক বৃষ্টির বেড়াজালে পণ্ড হয় সেদিনের অনুশীলন। পাক্কা দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় পর খোলা আকাশের নিচে সবুজ গলিচায় ফিরে স্পর্শ করতে পারেননি ব্যাট-বল। পরদিন অনুশীলনের সুযোগ পেতেই সাকিব সঁপে দেন নিজেকে। সতীর্থরা হোটেলে ফিরলেও সাকিব পড়ে থাকেন মিরপুরেই। সেই ধারাবাহিকতা দেখা যায় শুক্রবার।
বাংলাদেশ দলের অনুশীলন ছিল ঐচ্ছিক। ক্রিকেটাররা কাটাচ্ছেন ছুটি। তাই শের-ই বাংলার মূল মাঠে দেখা মেলেনি কোনো ক্রিকেটারের। তবে ইনডোরে চোখ ফেলতেই দেখা যায় রাজ্যের ব্যস্ততা। নেট বোলাররা সাকিবকে টানা বল করে যাচ্ছেন। পাশে দাঁড়িয়ে দেখছিলেন ডমিঙ্গো। প্রতি বলের পরই কিছু না কিছু দূর থেকে দেখিয়ে দিচ্ছিলেন। কখনো সাকিব নিজে এসে ডমিঙ্গোকে শেডো ব্যাটিং করে দেখাচ্ছিলেন। প্রথম দিকের নেট ব্যাটিংয়ে সাকিবকে দেখা যায়নি নিখুঁত। মাঝে গতকাল একমাত্র অনুশীলন ম্যাচে বড় রানের দেখা পাননি। ২০ বলে ২ চারে ২৮ রান করে ফিরিছিলেন সাজঘরে। যেখানে তার সতীর্থরা নেমেই পেয়েছেন ফিফটির দেখা।
তবে গতকাল অন্য দিনের তোলনায় ছিলেন সাকিব ছিলেন যথেষ্ট সাবলীল ও আত্মবিশ্বাসী। খেলছিলেন একের পর এক ড্রাইভ। বাউন্স বলেও দেখা গেছে হাত পাকিয়ে নিতে। ইনডোরের ব্যাটিং শেষ করে ক্ষান্ত হননি। এবার মূল মাঠ এসে তাইজুলকে সঙ্গে নিয়ে করে যান ফিল্ডিং-ক্যাচিং অনুশীলন। এখানেও দেখা যায় ডমিঙ্গো-সাকিবের আলাপন। শুধু সাকিব নিজে নয় শিষ্যের সেরাটা পেতে মরিয়া গুরু ডমিঙ্গো নিজেও।
বিশ্বকাপের আগে হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে খেলেছেন অবিশ্বাস্য খেলা। এবারও অন্যরকম সাকিবকে দেখা যাচ্ছে। ফেরার পর দলের প্রয়োজনে হারিয়েছিলেন নিজের প্রিয় ব্যাটিং পজিশন। এবার সেই পজিশন পেতে যাচ্ছেন। অধিনায়ক তামিম ইকবাল সাকিবের ব্যাটিং পজিশনের কথা জানিয়ে বলেছেন তার ওপর প্রত্যাশা ও বিশ্বাসের কথা।
গতকাল গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তামিম বলেন, ‘প্রত্যাশা অবশ্যই বেশি থাকবে। তবে মনে রাখতে হবে, সাকিব বিশ্বকাপে যা করেছে, সেটা ব্যতিক্রমী। আমি তো চাইবো, প্রতি ম্যাচেই অমন হোক, সেও চাবে। তবে এটা তো প্রতি ম্যাচে সম্ভব না। একটা ছেলে ৮-৯ ম্যাচে ৬০০ রান (৬০৬) করে ফেলেছে, এটা তো আসলে সচরাচর দেখি না। টেনশনের ব্যাপার নাই। আমি নিশ্চিত সে ভাল করবে।‘ এই তীব্র গরম উপেক্ষা করে কঠোর পরিশ্রমের সুফল কী পাবেন সাকিব? তার ব্যাট হাসলে যে হাসবে পুরো বাংলাদেশ; তার বলের ঘুর্ণিতে মেতে থাকবে পুরো দেশ। সেই-সবের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও প্রায় ৪৫ ঘণ্টা!

মে ২২
০৪:০১ ২০২১

আরও খবর