Daily Sunshine

জামিন পেলেন মমতার দলের চার শীর্ষ নেতা

Share

সানশাইন ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বহুল আলোচিত নারদ স্টিং অপারেশন মামলায় গ্রেপ্তার রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের চার শীর্ষ নেতাকে অন্তর্র্বতী জামিন দিয়েছে বিশেষ সিবিআই আদালত। সোমবার দিনভর শুনানির পর সন্ধ্যায় জামিন পান মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দলের এই চার নেতা। এতে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে তৃণমূল শিবির।
গ্রেপ্তারের পর জামিন পাওয়া চার নেতা হলেন রাজ্যের মন্ত্রী ও প্রাক্তন মেয়র ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়। আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, বিচারক অনুপম মুখোপাধ্যায় চারজনেরই অন্তর্র্বতী জামিন মঞ্জুর করেছেন। ৫০ হাজার টাকার বন্ডে তাদের জামিন দেয়া হয়েছে। তবে এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে যেতে পারে সিবিআই। সোমবার ব্যাংকশাল আদালতে এই শুনানি চলে। কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ভার্চুয়াল শুনানির আয়োজন করা হয়েছিল।
আদালতে গ্রেপ্তার নেতাদের পক্ষে শুনানি করেন তৃণমূল সাংসদ তথা আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। নারদ কাণ্ডে বিরোধী দল নেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং বিজেপি বিধায়ক মুকুল রায়কে কেন গ্রেপ্তার করা হলো না, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। তিনি গ্রেপ্তার চারজনের জামিনের আবেদন করেন।
যদিও তার বিরোধিতা করে সিবিআই। সিবিআই পক্ষের আইনজীবী ধৃতদের জেল হেফাজতে রাখার আর্জি জানায়। সিবিআই পক্ষের আইনজীবী যুক্তি দেখান, ধৃতরা বাইরে বেরিয়ে প্রমাণ নষ্ট করে দিতে পারেন। ধৃতদের আইনজীবীরা পাল্টা যুক্তি দেখান, ফিরহাদ কলকাতা পুরসভার প্রধান প্রশাসক। সাম্প্রতিক কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য তাকে প্রয়োজন। অন্য দিকে ম্যাথু স্যামুয়েলের স্টিং অপারেশন নিয়েই প্রশ্ন তোলেন শোভনের আইনজীবী। শুনানির শেষলগ্নে আদালতে চার্জশিটও জমা দেয় সিবিআই।
বিধানসভার অধ্যক্ষের অনুমতি ছাড়া মন্ত্রী এবং জন প্রতিনিধিদের কীভাবে গ্রেপ্তার করা হল, আদালতে সোমবার সেই প্রশ্নও তোলেন কল্যাণ। এর আগে বহুল আলোচিত নারদ স্টিং অপারেশন মামলায় হঠাৎ করেই গ্রেপ্তার করা হয় রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের চার শীর্ষ নেতাকে। ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই তাদেরকে গ্রেপ্তার করে রাজ্যের দপ্তর নিজাম প্যালেসে নিয়ে যায়। এরপরই ওই ভবনে পৌঁছে ধর্নায় বসেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল প্রধান মমতা ব্যানার্জি।

মে ১৮
০৫:০৩ ২০২১

আরও খবর