Daily Sunshine

ফিক্সিং নিয়ে আল জাজিরার ডকুমেন্টারি: প্রমাণ পায়নি আইসিসি

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: ক্রিকেটে ফিক্সিং নিয়ে টিভি চ্যানেল আল জাজিরার ডকুমেন্টারি প্রচারের প্রায় তিন বছর পর তদন্ত কাজের সমাপ্তি ঘোষণা করেছে আইসিসি। বিশ্বাসযোগ্যতায় ঘাটতি ও নির্ভরযোগ্য প্রমাণের অভাবে সংশ্লিষ্ট কারও বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনা হচ্ছে না বলে জানিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্তা সংস্থা।
‘ক্রিকেট’স ম্যাচ ফিক্সারস’ নামে ওই ডকুমেন্টারি ২০১৮ সালের ২৭ মে প্রচারিত হয়েছিল আল জাজিরায়। এর পরপরই তদন্ত শুরু করে আইসিসি। সোমবার সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আইসিসি জানায়, তারা তদন্ত শেষ করেছে। তিনটি মূল ক্ষেত্রকে ঘিরে আইসিসির তদন্ত পরিচালনা করা হয় বলে জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে, ওই ডকুমেন্টারিতে তুলে ধরা অভিযোগগুলো, এটির অংশ হওয়া সন্দেহভাজনরা ও যেভাবে ওই ডকুমেন্টারির জন্য প্রমাণ সংগ্রহ করা হয়েছিল।
ওই ডকুমেন্টারিতে দুটি ম্যাচে স্পট ফিক্সিংয়ের কথা বলা হয়েছিল, ২০১৬ সালের ভারত-ইংল্যান্ড চেন্নাই টেস্ট ও ২০১৭ সালের ভারত-অস্ট্রেলিয়ার রাঁচি টেস্ট। খতিয়ে দেখতে আইসিসি চারজন স্বাধীন তদন্তকারীকে দায়িত্ব দিয়েছিল, যারা বাজি ও ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ। খেলার যে অংশগুলোতে ফিক্সিং করা হয়েছিল বলে দাবি করা হয়েছিল ডকুমেন্টারিতে, চার বিশেষজ্ঞেরই মতে, সেই অংশগুলো খুবই অনুমিত এবং ফিক্সিং করা যুক্তির বাইরে।
আইসিসির ‘ইন্টেগ্রিটি’ বিষয়ক মহাব্যবস্থাপক অ্যালেক্স মার্শাল বলেন, ডকুমেন্টারিতে তুলে ধরা অভিযোগগুলোর ভিত্তি মজবুত নয়। “ক্রিকেটে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে প্রতিবেদনকে আমরা স্বাগত জানাই, কারণ খেলায় এসবের কোনো স্থান নেই। তবে কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে হলে আমাদের হাতে পর্যাপ্ত প্রমাণ থাকতে হবে। প্রচারিত অনুষ্ঠানে যে দাবিগুলো করা হয়েছে, প্রতিটিরই মৌলিক ভিত্তি দুর্বল বলে দেখা গেছে আমাদের তদন্তে, যা অভিযোগগুলোকে অসম্ভাব্য করেছে এবং বিশ্বাসযোগ্যতায় ঘাটতি থেকে গেছে। আমাদের চার জন স্বাধীন বিশেষজ্ঞও এমনটিই মনে করেন।” বাস্তব ও পর্যাপ্ত প্রমাণ পাওয়া গেলে আবার তদন্ত করা হবেও বলে জানায় আইসিসি। তবে আপাতত তদন্ত কাজে তারা সন্তুষ্ট, জানান অ্যালেক্স মার্শাল।

মে ১৮
০৪:৫৯ ২০২১

আরও খবর