Daily Sunshine

১৫০ কোটি টাকায় টিভি স্বত্ব বিক্রির আশায় বিসিবি

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: দুই বছরের জন্য হোম সিরিজের টিভি স্বত্ব ১৫০ কোটি টাকায় বিক্রির প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এই সময়ে বাংলাদেশ জাতীয় পুরুষ দল ৯টি হোম সিরিজ খেলবে, যেখানে ৭ টেস্ট, ১৮ ওয়ানডে ও ১৯ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ রয়েছে। চলতি বছরের ১৮ মে থেকে ২০২৩ সালের ৫ অক্টোবর পর্যন্ত হোম সিরিজের টিভি স্বত্ব বিক্রির জন্য দরপত্র আহ্বান করেছে বিসিবি। ১৭ মে টিভি স্বত্ব বিক্রির শেষ সময়।
২০১৪ সালে ছয় বছরের জন্য হোম সিরিজের টিভি স্বত্ব গাজী টেলিভিশনের কাছে বিক্রি করে বিসিবি। ২ কোটি ২৫ হাজার ডলারে সম্প্রচার স্বত্ব পায় টেলিভিশনটি। করোনা পরবর্তীকালে ক্রিকেট মাঠে গড়ালে সিরিজ ধরে ধরে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে বিসিবি। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে শুধুমাত্র ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য দরপত্র আহ্বান করেছিল বোর্ড। তাতে তিনটি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করলেও অবিশ্বাস্য মূল্যে সবাইকে ছাড়িয়ে সম্প্রচার স্বত্ব কিনে নেয় ব্যান-টেক। জানা যায়, তিন ওয়ানডে এবং দুই টেস্টের জন্য ১৭ কোটি ৯৭ লাখ টাকা বিসিবির কোষাগারে জমা দেয় ব্যান-টেক। এবারও এমন কিছুর প্রত্যাশায় রয়েছে বিসিবি।
দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার এক কর্মকর্তার বক্তব্য, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটের বর্তমান যে ব্র্যান্ডভ্যালু রয়েছে তাতে টিভি স্বত্ব থেকে ১৫০ কোটি টাকা বিসিবি পেতেই পারে। এর আগে গাজী টেলিভিশনও বিপুল অর্থ দিয়েছিল। তাদের থেকে সব পাওনা বিসিবি পেয়েছে।’ বিসিবিকে আশা দেখাচ্ছে সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের অবিশ্বাস্য মূল্য। বিসিবি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য দরপত্রে যে মূল্য দিয়েছিল তার থেকে ১২ কোটি ৬০ লাখ টাকা বেশি পেয়েছিল। এবারও তেমন কিছুর প্রত্যাশায় বিসিবি।
বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা এবার দীর্ঘমেয়াদে টিভি স্বত্বের জন্য দরপত্র আহ্বান করেছি। যদিও আমাদের এফটিপি চূড়ান্ত হয়নি তবুও আমরা জানি যে ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত আমরা কী কী সিরিজ খেলবো। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে আমরা ভালো দামে স্বত্ব বিক্রি করতে পেরেছি। এবারও ভালো মানের দাম প্রত্যাশা করছি।’
জানা গেছে, গাজী টেলিভিশন ও টি স্পোর্টস এবারও টিভি স্বত্ব কেনার জন্য নিজেদের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আবার গতবার টিভি স্বত্ব কেনা ব্যান-টেকও দৌড়ে আছে। বিজ্ঞাপনী সংস্থা ব্যান-টেক এ স্বত্ব কিনে পরবর্তীতে বিক্রি করে দিতে পারে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে তারা টিভি স্বত্ব কিনে টি স্পোর্টস ও নাগরিক টিভির কাছে বিক্রি করেছিল।
এদিকে করোনা ও কোয়ারেন্টাইনের কারণে আসন্ন শ্রীলঙ্কা সিরিজে ব্রডকাস্ট নিয়ে কিছুটা ঝামেলা তৈরি হচ্ছে। বাংলাদেশে যারা ব্রডকাস্টের কলাকুশলী আসেন, তাদের বেশির ভাগ ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে। রিভিউ সিস্টেমের পুরোটাই আসে ইংল্যান্ড থেকে। ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এখন দেশে এলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন। ইংল্যান্ডের থেকে ফিরলে কোয়ারেন্টাইন ৩ দিনের। ফলে ব্রডকাস্টের দায়িত্বে যারা আছেন, তাদের নিয়ে চিন্তিত বিসিবিও। তবে ঈদের পরপরই সরকার থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়ার অপেক্ষায় আছে বিসিবি।
কিছুদিন আগে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছিলেন, ‘এটা অবশ্যই একটা চ্যালেঞ্জ। তারপরও জানেন সরকারের প্রটোকল আছে। আমরা চেষ্টা করছি এই প্রটোকলের মধ্যে থেকে যতটুকু করা যায়। এছাড়া আমরা অন্য আরও বিকল্প ব্যবস্থা দেখছি। বিশ্বের অন্য যেসব দেশে ক্রিকেট হচ্ছে সেসব জায়গা থেকে ক্রু এনে খেলাগুলো চালাবো।’

মে ১২
০৫:৩৮ ২০২১

আরও খবর