Daily Sunshine

মরা গাছ টেন্ডারে নিয়ে তাজাও সাবাড়

Share

বরেন্দ্র প্রতিনিধি, তানোর : রাজশাহীর তানোর-আমনুরা সড়কের পাশে বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) ২৮ টি মরা শিশুগাছ টেন্ডার নিয়ে অনেকটা প্রকাশ্যে মোটা তাজা শিশু কেটে সাবাড় করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে।
যুবলীগ নেতার নাম আহসান হাবিব (নেংড়া ভুট্টো) বাধাইড় ইউপির তৈলপাড়া ৮নং ওয়ার্ডের যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক তিনি। এর আগেও একাধিক বার নামে-বেনামে বিএমডিএর কাছে অতি কৌশলে মরা গাছ টেন্ডার নিয়ে মোটা মোটা তাজা গাছ কেটে সাবার করেছেন তিনি।
সবশেষ চলতি মাসের ১৩ এপ্রিল যুবলীগ নেতার নেংড়া ভুট্টো তার ছোট ভাই মিনহাজের নামে ২৮টি মরা শিশুগাছ ৬৭ হাজার ৫০০ টাকার টেন্ডার নিয়ে গাছ টাকা শুরু করেছেন। তাদের টেন্ডারে চিকন মরা ২৮টি গাছ কাটার কথা থাকলে বেছে বেছে ৪০টির বেশি তর তাজা মোটা শিশু গাছ কেটে নিচ্ছেন অনেকটা প্রকাশ্যে।
আর যুবলীগ নেতার এসব কর্মকান্ডকে সহযোগিতা করছেন বিএমডিএ তানোর জোনের কয়েকজন অসাধু কর্মকর্তা। তারা তাজার গাছ কাটার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করে উল্টো যুবলীগ নেতার পক্ষে সাফাই গাইছে।
বুধবার সকালে মুন্ডুমালা-আমনুরা সড়কের তৈলপাড়া নামক স্থানে মরা গাছের আদলে একটি মোটা তাজা শিশুগাছ ৫-৬ জন শ্রমিক দিয়ে কাটাছিলেন যুবলীগ নেতা ও তার ভাই মিনহাজ।
তাজা গাছ কাটার বিষয়টি বিএমডিএ কর্র্তৃপক্ষকে সঙ্গে সঙ্গে অভিহিত করেন গ্রামের লোকজন। এর কিছুক্ষন পরে ঘটনাই আসের বিএমডিএ তানোর জোনের পরিদর্শক মুন্জুর। উপস্থিত হন কয়েকজন সংবাদ কর্মিও। পরিদর্শক মুনজুরের সামনে একটি মোটা তাজা শিশুগাছ কাটা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। সে সময় পরিদর্শক স্থানীয় লোকজন ও সংবাদ কর্মীদের কাছে স্বীকার করেন যে তাজা গাছটি কাটা হয়েছে সেটি টেন্ডারের নয়। তবে, বিষয়টি পত্রিকায় খবর প্রকাশ না করার জন্য বিএমডিএর পরিদর্শক ও যুবলীগ নেতা সংবাদ কর্মীদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন।
সংবাদকর্মী ও স্থানীয় লোকজন চলে যাওয়ার এক ঘন্টার পরে সরেজমিন ঘটনায় আসেন তানোর জোনের বিএমডিএর সহকারী প্রকৌশলী মাহাফুজুর রহমান। এর মধ্যে পাল্টে যাই সব কিছু। তাজা গাছ কাটলেও হয়ে যাই মরা গাছ। মরা গাছ কেটেছে বলে সাফাই গাইতে শুরু করেন খোদ প্রকৌশলী নিজেই।

এপ্রিল ৩০
০৩:১৩ ২০২১

আরও খবর