Daily Sunshine

পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফলের দিন বিজয় মিছিল নয়

Share

সানশাইন ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন কমিশন আদেশ দিয়েছে, আগামী ২ মে রাজ্য বিধানসভার ফলাফল ঘোষণার দিন কোনো দলই বিজয় মিছিল বের করতে পারবে না। শুধু তা–ই নয়, বিজয়ী প্রার্থী বা তাঁর প্রতিনিধি যখন নির্বচনে জয়ী হওয়ার শংসাপত্র রিটার্নিং অফিসারের কাছ থেকে নিতে যাবেন, তখন ওই প্রার্থী বা তাঁর প্রতিনিধির সঙ্গে মাত্র দুজন যেতে পারবেন।
ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের মাদ্রাজ হাইকোর্ট গত সোমবার পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি এবং বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে কড়া ভর্ৎসনা করেন। তারপর আজ মঙ্গলবার কমিশন এ নির্দেশ দিল। এদিকে কলকাতা হাইকোটও আজ বলেছেন, কমিশনের এ নির্দেশ নির্বাচনের সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তাদের প্রয়োগ করতে হবে।
গতকাল মাদ্রাজ হাইকোর্ট নির্বাচন কমিশনকে কড়া ভর্ৎসনা করেন। আদালত বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জন্য দায়ী একমাত্র ভারতের নির্বাচন কমিশনই। দ্বিতীয় ঢেউয়ের আগে নির্বাচন কমিশন পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় ভারতজুড়ে করোনার এই বাড়বাড়ন্ত। মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে গড়া দুই সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ এ কথা বলেন। এ বেঞ্চের অন্য সদস্য হলেন বিচারপতি সেন্থিল কুমার রামমূর্তি।
ডিভিশন বেঞ্চ আরও বলেছিলেন, করোনা–সংক্রান্ত বিধি উড়িয়ে যখন প্রচার করছিলেন রাজনৈতিক নেতারা, তখন তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি নির্বাচন কমিশন। তখন কি নির্বাচন কমিশনের সদস্যরা অন্য গ্রহে ছিলেন? ডিভিশন বেঞ্চ এই মন্তব্যও করেন, কমিশনের অফিসারদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা হওয়া উচিত। এই আদেশ পাওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন কমিশন নড়েচড়ে বসে। এক আদেশে জানায়, ২ মে রাজ্যের বিধানসভার ফলাফল ঘোষণার দিন কোনো দলই আর বিজয় মিছিল বের করতে পারবে না। সমাবেশ করতে পারবে না।
পাশাপাশি কলকাতা হাইকোর্টও আজ জানিয়ে দিয়েছেন, শুধু নিষেধাজ্ঞা জারি করলেই হবে না। সেটি কতটুকু কার্যকর হচ্ছে, তা নিশ্চিত করতে হবে নির্বাচন কমিশনকে। কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে গড়া ডিভিশন বেঞ্চ আরও জানিয়ে দেয়, নিষেধাজ্ঞা জারি করলেই হবে না। প্রতিটি নির্বাচনী কর্মকর্তাকে কড়াভাবে তা প্রয়োগ করতে হবে। আর তার ওপর নজর রাখবে হাইকোর্ট।
এদিকে ভারতের সুপ্রিম কোর্টও একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় শুনানিকালে বলেছেন, এখন দেশজুড়ে করোনা ঘিরে জাতীয় বিপর্যয় চলছে। এ সময় কোর্ট নীরব হয়ে থাকতে পারে না। সবার এখন দেশের সেবায় এগিয়ে আসা জরুরি। তাই এ নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্কের জায়গা নেই।
এবার পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতের পাঁচ রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের বিধানসভার নির্বাচন করার উদ্যোগ নেয় ভারতের নির্বাচন কমিশন। এগুলো হলো আসাম, কেরালা, তামিলনাড়, পশ্চিমবঙ্গ এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুদুচেরি। এই পাঁচ রাজ্যের মধ্যে আসামের ১২৬টি আসনের নির্বাচন সম্পন্ন হয় তিন দফায় ৬ এপ্রিল। একই সঙ্গে কেরালার ১৪০টি আসন, তামিলনাড়ুর ২৩৪ আসন এবং পুদুচেরির ৩০টি আসনের নির্বাচনও হয় এক দফায় ৬ এপ্রিল। আর পশ্চিমবঙ্গে ২৯৪ আসনের নির্বাচন করার প্রস্তুতি নেওয়া হয় আট দফায়। শুরু হয় ২৭ মার্চ। ইতিমধ্যে সাত দফার নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।

এপ্রিল ২৮
০৪:৫৪ ২০২১

আরও খবর