Daily Sunshine

রাজশাহীতে অবৈধ বিটকয়েন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে চাঁদাবাজ ও মাস্তানবাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভূক্তভোগি রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিমিটেড এর স্বত্বাধিকারী আবু ইউসুফ মাসুদ। তিনি রোববার বিকালে উপশহরস্থ নিজ প্রতিষ্ঠানে অবৈধ বিটকয়েন ব্যবসায়ী ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালের সাবেক রাজশাহী রিজিওনাল ম্যানেজার আনিসুর রহমান আনিসসহ তার চাঁদাবাজ ও মাস্তানবাহিনীর বিরুদ্ধে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।
তিনি সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন নগরীর বোয়ালিয়া থানাধীন, আহম্দে নগর, সপুরার মৃত নূর মোহাম্মদ এর ছেলে আনিসুর রহমান ( ৪৫ ) ও তাঁর স্ত্রী এই হোটেলের ব্যবসায়ীক পার্টনার ছিলেন। কিন্তু তিনি ও তার স্ত্রী পার্টনার থেকে স্ব-ইচ্ছায় পদত্যাগ করেন। আনিসুর রহমান ব্যবসার সুবাদে ২৩ লাখ টাকা তাঁর নিকট হতে পাবেন। এই টাকা চলতি বছরের গত ২০মার্চ পরিশোধ করার কথা থাকলেও বিল্ডিংয়ের কাজ অসম্পূর্ন থাকায় ঐ টাকা সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ পরিশোধ করতে না পেরে ৯ লাখ টাকা নগদ আনিসুরের বন্ধু রাজপাড়া থানাধীন, বহরমপুরের আব্দুল গফুরের ছেলে আনোয়ার হোসেন এর মাধ্যমে পরিশোধ করেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।
কিন্তু পরবর্তীতে চলতি মাসের ৩ তারিখ রাত সাড়ে ৭টার সময় আনিসুর রহমানের ভাড়াটিয়া গুন্ডা নগরীর সাহেবাজার এলাকার শামসুল ইসলামের ছেলে শিপন (৪৫) অজ্ঞাত আরো কয়েকজন সন্ত্রাসীকে সাথে নিয়ে এসে তাঁর নিজ প্রতিষ্ঠান রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিমিটেড প্রবেশ করে এবং আনিসুরের অংশের দাবীদার হিসেবে পুনরায় ২৩ লাখ টাকা দাবী করেন। টাকা না দিলে এই প্রতিষ্ঠানের মালিকানা বুঝিয়ে দেয়ার কথা বলেন।
টাকা কিংবা মালিকানা না বুঝে দিলে তারা প্রতিষ্ঠানে তালা বন্ধ করে দিবেন বলে হুমকী দেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। সেইসাথে সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় তাঁকে মেরে ফেলার হুমকি দেন বলে উল্লেখ করেন সংবাদ সম্মেলনে। এই অবস্থায় প্রতিষ্ঠান ও প্রাণ রক্ষায় তিনি বোয়ালিয়া থানা পুলিশকে বিষয়টি জানালে উপশহর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক শাহিনুর রহমান হোটেলে আসেন।
এস.আই শাহিনুর শিপনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যাওয়ার কথা বললে, ঘটনা স্থলে উপস্থিত রাসিক ১০ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি জাফর শিপনকে ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। তার অনুরোধের প্রেক্ষিতে এবং সভাপতির সম্মানের কথা ভেবে তিনিসহ উপস্থিত সকলে সার্বিক বিষয় চিন্তা করে শিপনকে ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সে সময়ে উপশহর এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে রমজান আলী (২৯ ) ও দুদু মিয়ার ছেলে কৌশিক আহম্মেদ ( ৩২ ) এর সামনে সভাপতি জাফর রাজশাহী ইন রেসিডেন্সিয়াল লিমিটেড এর প্যাডে জিম্মা নামায় স্বাক্ষর করে শিপনকে নিয়ে যান। বিষয়টি উপস্থিত আরো অনেকে জানেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।
আনিসুর স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে কিছু করতে না পেরে চলতি মাসের ৪ এপ্রিল রাজশাহী সি এম এম কোর্টে ১৪৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। বিবাদী আনিসুর মামলা করেও ক্ষান্ত হননি। গত ৬ এপ্রিল আনুমানিক সকাল সাড়ে ১১টায় সময় আনিসুর তার স্ত্রীকে সাথে নিয়ে হোটেলে এসে স্টাফদেরকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে যান। সেইসাথে প্রয়োজন আমাকে গুম করে দিয়ে এই হোটেলের মালিক হবেন বলে কর্মচারীদের নিকট হুমকী দেন। এ বিষয়ে তিনি বোয়ালিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন বলে জানান। সেইসাথে এই হুমকি ও মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান ভূক্তভোগি আবু ইউসুফ মাসুদ।

এপ্রিল ১২
০৬:৪৫ ২০২১

আরও খবর