Daily Sunshine

রোমান সানার ভরাডুবি

Share

স্পোর্টস ডেস্ক: তীরন্দাজ রোমান সানা স্বপ্ন দেখেন, ক্ষ্যাপাটে স্বপ্ন। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ অলিম্পিকে উড়াবেন লাল-সবুজের পতাকা। তার স্বপ্ন মোটেও বাড়াবাড়ি নয়। আর্চারি বিশ্বকাপের ব্রোঞ্জ পদক জিতে সেই স্বপ্ন নিজে দেখতে শুরু করেছেন, দেশকেও দেখাতে শুরু করেছেন। কিন্তু হঠাৎ এলোমেলো তার পারফরম্যান্স।
চলমান বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমস ছিল প্রস্তুতির মঞ্চ। কিন্তু হতাশার বৃত্তে বন্দি হয়ে আছেন বাংলাদেশের অন্যতম সেরা এ তীরন্দাজ। বিশ্ব আর্চারির ২০১৯ সালের বর্ষসেরা ব্রেক থ্রু অ্যাথলেট নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে সরাসরি সুযোগ পেয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ অলিম্পিকে। কিন্তু বাংলাদেশ গেমসে তার গলায় এখনও উঠেনি কোনও পদক।
টঙ্গীর আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়ামে ছেলেদের রিকার্ভ এককের প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশ আনসারের রোমান ১-৭ সেটে হেরে গেছেন ঢাকা আর্মি আর্চারি ক্লাবের জুয়েল খানের কাছে। ২০১৯ কাঠমান্ডু এসএ গেমসে সোনা জেতার পর গত বছর রোমান প্রথম ঘরোয়া টুর্নামেন্টে অংশ নেয় বিজয় দিবস টুর্নামেন্টে। সেখানে সেমিফাইনালে হেরেছিলেন।
এরপর গত মার্চে কক্সবাজারে জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে সোনার পদক হাতছাড়া হয় রোমানের, ব্রোঞ্জ জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে। অথচ বাংলাদেশ গেমসে রোমানের শুরুটা কী দুর্দান্তই না হয়েছিল! র‌্যাংকিং রাউন্ডে একই সঙ্গে জাতীয় ও গেমস রেকর্ড গড়েন ৬৬১ পয়েন্ট পেয়ে র‌্যাংঙ্কিংয়ে হয়েছিলেন প্রথম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এলিমিনেশন রাউন্ডে এসে সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি।
খেলা শেষে হতাশ রোমান গেমসের টানা সূচিকে দায় দিলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির কারণে সূচি বদল হয়েছে আমাদের। এতে সারা দিনে র‌্যাংকিং রাউন্ড, এলিমিনেশন রাউন্ড, নকআউট পর্ব খেলতে হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীন খেলেছি দুপুর ২টা পর্যন্ত। শেষ দিকে এসে শরীরে কুলিয়ে উঠতে পারছিলাম না। আন্তর্জাতিক গেমসেও এভাবে কখনও খেলিনি। পদক মঞ্চে উঠতে পারলাম না বলে খারাপই লাগছে।’
গত বছর টোকিও অলিম্পিক হওয়ার কথা ছিল। তবে কোভিড-১৯ বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ আকারে দেখা দিলে আসরটি এক বছর পিছিয়ে দেওয়া হয়। এ বছর অলিম্পিক ২৩ জুলাই থেকে শুরু হওয়ার কথা রয়েছে এবং শেষ হবে ৮ আগস্ট। অলিম্পিকে সরাসরি খেলার সুযোগ পাওয়া রোমানকে এর আগেই প্রস্তুত হতে হবে।

এপ্রিল ০৬
০৫:৫৫ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকছে, বন্ধ থাকছে যানবাহনও। বিধি-নিষেধ থাকছে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলেও। সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বন্ধ থাকছে: সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সকল প্রকার পরিবহন (সড়ক, নৌ, রেল, অভ্যন্তরীণ

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত