Daily Sunshine

নগরীতে আজ থেকে মশক নিধনে লার্ভিসাইড ব্যবহার

Share

স্টাফ রিপোর্টার : শীতের বিদায়ের সাথে সাথেই রাজশাহীতে বাড়তে শুরু করেছে মশার উপদ্রব। বাসা-বাড়ি, অফিস-আদালত, মুদির দোকান কিংবা চা স্টল, কোথাও স্বস্তি নেই। মশার হাত থেকে রক্ষা পেতে কয়েল, মশারী ও অন্যান্য পদ্ধতি ব্যবহারেও প্রতিকার মিলছে না বলে ক্ষোভের সুর মানুষের মুখে।
তবে এই সমস্যার দ্রুত সমাধান পেতে চলেছেন নগরবাসী। মশার উপদ্রব থেকে নগরবাসীকে রক্ষা করতে নড়ে বসেছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক)। মশার লার্ভা ধ্বংসে এবার শুধুমাত্র ডিজেল, কোরোসিন ও ফগার মেশিনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে না রাসিকের কার্যক্রম।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মশা নিধনের জন্য বিশেষ ধরণের কীটনাশককে বলা হয় এডাল্টিসাইড বা লার্ভিসাইড। মশা নিধনের জন্য প্রয়োজন সঠিক লার্ভিসাইডের ঠিকঠাক প্রয়োগ। তাছাড়া সহসাই মশার উপদ্রব থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব না। এরই ধারাবাহিকতায় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে রাসিকের সংশ্লিষ্ট বিভাগ।
রাসিক সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সালের পর আবারো লার্ভিসাইড ব্যবহার করতে যাচ্ছে সিটি কর্পোরেশন। আসন্ন রমজানকে মাথায় রেখে পরিকল্পণা সাজিয়েছে রাসিক। রমজানে মানুষের ইবাদতে কোনরকম ব্যঘাত যেন না ঘটে, নগরবাসীকে যেন কষ্ট করতে না হয়, সেটিকে প্রাধান্য দিয়ে মশা নিধনে তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। ইতোমধ্যেই ২ হাজার লিটার লার্ভিসাইড কেনা হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আজ থেকেই শুরু হচ্ছে এর ব্যবহার।
আজ শুক্রবার ৩০টি ওয়ার্ডে একযোগে মশার লার্ভা ধ্বংসে লার্ভিসাইড ব্যবহার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে রাসিক। গতকাল বিকেলে মশা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালনা সম্পর্কে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সকল ওয়ার্ড সচিব ও ওয়ার্ড সুপারভাইজারদের নিয়ে এক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে যথাযথ ও সুষ্ঠুভাবে লার্ভিসাইড ব্যবহারে ওয়ার্ড সচিব ও ওয়ার্ড সুপারভাইজারদের দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।
রাসিকের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি, প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন- বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য সচিব ও রাসিকের প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন, মেডিকেল অফিসার ডা. তারিকুল ইসলাম প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে সরিফুল ইসলাম বাবু বলেন, সর্বশেষ ২০১৪ সালে মশা নিয়ন্ত্রণে লার্ভিসাইড ব্যবহার করেছিল রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। ২০১৪ সালের পর থেকে এতোদিন মশার লার্ভা ধ্বংসে ডিজেল ও কোরোসিন ব্যবহার এবং ফগার মেশিনে কীটনাশক স্প্রে কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে। এবার মশা নিয়ন্ত্রণ বিশেষ করে আগামী রমজান মাসে মশার জন্য নগরবাসীকে যাতে কষ্ট করতে না হয়, সেটিকে লক্ষ্য রেখে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন মহোদয় লার্ভিসাইড ক্রয় করার অনুমোদন দেন। এরপর ২ হাজার লিটার লার্ভিসাইড ক্রয় করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে লার্ভিসাইড ব্যবহার কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। এতে করে আমরা ভালো ফলাফল পাব আশা করছি।
সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য সচিব ও প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন বলেন, ফগার মেশিনে কীটনাশক স্প্রে ও ডিজেল-কোরোসিন ব্যবহার পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারণ। তারপরও মশা নিয়ন্ত্রণে বাধ্য হয়ে আমাদের এগুলো ব্যবহার করতে হয়েছে। মশা নিয়ন্ত্রণে সবচেয়ে উত্তম পন্থা হচ্ছে মশার উৎসস্থলের মশার ডিম ধ্বংস করা। সেটি যথাযথভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব হয় লার্ভিসাইড ব্যবহারে। এবার সেই কার্যক্রম শুরু করছি। মশার লার্ভা ধ্বংসে লার্ভিসাইড ব্যবহারের কারণে মশা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্দেশনায় ও কাউন্সিলরবৃন্দের সহযোগিতায় এই কার্যক্রম যথাযথভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশা করছি। শিগগিরই এর সুফল পাবেন মহানগরবাসী।
সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমন বলেন, মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের দিকনির্দেশনায় আমরা মশা নিয়ন্ত্রণে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছি। দেশের অন্যান্য সিটির তুলনায় রাজশাহী সিটির মশা অনেকটায় নিয়ন্ত্রণে। মশা নিয়ন্ত্রণে নাগরিকদের সচেতন থাকতে হবে।
রাসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোস্তাফিজ মিশুর সঞ্চালনায় মেডিকেল অফিসার ডা. তারিকুল ইসলাম ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের সচিব ও সুপারভাইজাররা বক্তব্য প্রদান করেন।

মার্চ ২৬
০৬:২৪ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

ঈদের আগে ৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে আর্থিক সহায়তা

সানশাইন ডক্সে; করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ওয়েভে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ গরিব পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার চিন্তা করছে সরকার। প্রত‌্যকে পরিবারকে ২৫০০ টাকা করে দেওয়া হবে। ঈদের আগে মোবাইলের মাধ্যমে সুবিধাভোগী পরিবারের হাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার হিসেবে এ অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে বলে অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, সম্প্রতি

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত