Daily Sunshine

পবায় পুকুর খনন অব্যাহত : পারিলায় পানি নিস্কাশনের নালা না দেয়ায় উত্তেজনা

Share

স্টাফ রিপোর্টার: রাজনৈতিক জবাবদিহিতা না থাকা ও প্রশাসনের উদাসীনতায় অপরিকল্পিত পুকুরখনন চলছে। এসব পুকুর খননে একদিকে কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা অন্যদিকে পুকুর খননে মাছের লাভের চেয়ে অনেক বেশী ক্ষতি হচ্ছে কৃষিজীবী ও পরিবেশের। আর গ্রামীণ রাস্তাগুলোতে দেখা দিচ্ছে বেহাল দশা। কয়েক মাস আগের নির্মিত কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে রাস্তাগুলোও এখন মরন ফাঁদ।
প্রশাসন, জনপ্রতিনিধিদের মদদেই অপরিকল্পিত পুকুর খননের মহোৎসব চলছে বলে জানিয়েছেন সচেতনমহল, পরিবেশবাদি ও ভুক্তভোগিরা। এদিকে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পানি নিস্কাশনের ক্যানেল না রাখায় পবা উপজেলার পারিলার কাঁঠালপাড়ায় কৃষিজীবিদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
রাজশাহী জেলায় বাণিজ্যিক মাছের খামার বেড়েই চলেছে। জমি লীজ নিয়ে এসব খামরের নামে চলছে মাটি বিক্রি। আর এসব কাজের সাথে জড়িয়ে আছে বর্তমান সরকার দলীয় নেতৃবৃন্দ। প্রশাসনও নীরবে তাদেরকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ভুক্তভোগিরা জানান, আগে তাও পুকুরখননের দায়ে মাঝে মধ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা ও আটক করতো তাদের। কিন্তু টাকা দিলেই এবং নেতা হলেই সব মাফ। এছাড়াও সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশও মসজিদ মাদ্রসার নামে চাঁদা আদায়ে নেমেছে বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।
জানা গেছে, পবা উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়নের চেয়ে পারিলা ইউনিয়নের প্রায় শতকরা ৫০ ভাগ জমিই এখন হয় পুকুর, নয় ইটভাটার দখলে। এরপরেই সগৌরবে চলছে অপরিকল্পিত পুকুর খনন। কয়েক দিন আগেই ইউনিয়নের কাঁঠালপাড়া গ্রামের মাঠে প্রায় ৫০ বিঘায় নতুন করে খনন হয়েছে পুকুর। আর এই পুকুরের মাটি বহন করেছে ড্রাম ট্রাকে। এছাড়াও রয়েছে ট্রাক্টর ও কাকড়া গাড়ি। মাটি বহনের সময়ে উড়ন্ত ধুলাবালিতে সয়লাব বাড়ি ঘর। ধুলাবালিতে বিশেষ করে শিশু ও বয়স্কদের রোগ-ব্যাধি লেগেই আছে। এছাড়াও ওই রাস্তাগুলোতে ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটছে। ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করেন প্রশাসনে আবেদন দিয়েও কাজ হচ্ছে না।
এতে ওই এলাকার গ্রামীণ রাস্তা একেবারে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এছাড়াও ফাটল ধরেছে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে সম্প্রতি নির্মিত খড়খড়ি বাইপাস থেকে রামচন্দ্রপুর হাট হয়ে দুর্গাপুর ও বাগমারা উপজেলার রাস্তায়। এই পুকুরটি খনন করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম। কয়েকবছর থেকেই তিনি পুকুরখননের সাথে জড়িত।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চাষি জানান, হাজি সাহেব পুকুরখননের আগে ওয়াদা করেছিলেন বিলের পানি নিস্কাশনে ক্যানেল দিবেন। কিন্তু পুকুরখনন হয়ে তিনি তা দেন নি। ফলে ভুক্তভোগিদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করে। দুইদিন এলাকাবাসীর চাপাচাপিতে তিনি ক্যানেল না দিয়ে চুঙ দিয়ে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করবেন বলে আবারো প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।
এ ব্যাপারে উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম জানান, কয়েকবছর আগেই ওই এলাকায় পুকুরখনন হয়েছে। যারফলে এমনিতেই পানি জমে থাকায় চাষাবাদ হচ্ছিল না। ভূক্তভোগিরা আমার কাছে পুকুরখননের জন্য চাপাচাপি করে। জমিতে আবাদ হলে পুকুর খনন করে মাছ চাষ করলে ক্ষতিতো দেখছি না। একদিকে জমির মালিকরা টাকা পাচ্ছেন অন্যদিকে মাছের চাহিদা মিটাতে পারছে।
পবা উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি শেখ মো. এহেসান উদ্দিন বলেন, অনেক আগেই উপজেলার পারিলা ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে পুকুরখনন হয়েছে। পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় বর্তমানে পানি হলেই আবাদ ডুবে যায়। যে কারণে অনেক কৃষক বাধ্য হয়েই পুকুরখননের দিকে ঝুকেছে। তবে প্রশাসন এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

মার্চ ২৩
০৭:৩৮ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

মামুনুল হককে আদালতে নেয়া হচ্ছে

মামুনুল হককে আদালতে নেয়া হচ্ছে

বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে আজ সকাল ১০টার পর আদালতে নেয়া হবে। আজ সোমবার সকালে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গতকাল রবিবার বেলা ১২ টা ৫০ মিনিটের দিকে মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত