Daily Sunshine

লক্ষ্য পূরণে এগিয়ে যাচ্ছেন পুষ্প

Share

স্টাফ রিপোর্টার: নারীর স্বাধীনতা আসলে কী? আসলেই কি নারী স্বাধীন? অনেকে বলে থাকেন সমাজ অনেক এগিয়ে গিয়েছে, নারীরা এখন অনেক স্বাধীনতা পায়। নারীরা এখন সব করতে পারে। বাস্তবতা পুরোপুরি এমন নয়। এখনো সমাজের নির্ধারিত গন্ডির বাইরে আসলে এ নিয়ে নারীকে নানাবিধ প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় আর চলাফেরায় অবলম্বন করতে হয় সতর্কতা। এখনও আর্থিক স্বাধীনতা অর্জনের পথে প্রতিটি নারীকেই মুখোমুখি হতে হয় নানা প্রতিবন্ধকতার।
স্বাধীনতার মাসে নারী স্বাধীনতা নিয়ে এমনটাই বলছিলেন জয়পুরহাটের মেয়ে, রাজশাহীর উদ্যোক্তা মারজিয়া পুষ্প। ২০১৮ সালে তিনি নিজ উদ্যোগে রাজশাহীতে চালু করেন তার রেস্টুরেন্ট অ্যারো স্পুন। তিনি রাজশাহীর প্রথম নারী উদ্যোক্তা যিনি পড়াশুনার পাশাপাশি রাজশাহীতে নিজের রেস্টুরেন্ট দাঁড় করাতে পেরেছেন এবং বর্তমানে তার রেস্টুরেন্টটি অনলাইন ফুড ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান ফুডপ্যান্ডার রাজশাহী অঞ্চলের রেস্টুরেন্টগুলোর তালিকার শীর্ষে রয়েছে।
মারজিয়ার শৈশব কাটে জয়পুরহাটে বাবা-মার সাথে। তিন ভাই-বোনের মধ্যে মারজিয়া বড়। মেঝ ভাই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করছেন আর ছোট ভাই স্কুলপড়ুয়া। জয়পুরহাট থেকে এসএসসি পাশ করার পর রাজশাহীতে এসে রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজে ভর্তি হন মারজিয়া। সফলতার সাথে এইচএসসি পাশ করার পর সুযোগ মিলে দেশের বিভিন্ন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার। ভর্তি হন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে। প্রথম শ্রেণিতে পাশ করেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। ব্যবসায়ী বাবাকে দেখে ছোট থেকেই তার ইচ্ছা ছিল ব্যবসায়ী হওয়ার।
স্বাধীনচেতা মারজিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষ থেকেই নিজের সকল খরচ নিজেই চালান। প্রথমে কোচিংয়ে শিক্ষকতা এবং টিউশানি করে উপার্জন করলেও স্বপ্ন ছিল স্বাধীনভাবে নিজের কিছু করার। রন্ধনশিল্প এবং বিভিন্ন ধরনের খাবার নিয়ে আগ্রহ থাকার কারণে মাস্টার্সে অধ্যয়নকালীন শুরু করেন রেস্টুরেন্ট ব্যবসা।
শুরু থেকেই ভিন্ন কিছু নিয়ে রেস্টুরেন্ট চালু করার ইচ্ছা ছিল মারজিয়ার। সেই লক্ষ্যেই তার রেস্টুরেন্টের মেন্যুতে রেখেছেন ভিন্ন স্বাদের কিছু খাবার। রাজশাহীতে অ্যারো স্পুনই সি ফুডকে আরও জনপ্রিয় করে তোলে। একজন পেশাদার শেফ এবং পরিচিত কয়েকজন নিয়ে শুরু করা রেস্টুরেন্টটিতে এখন কর্মচারীর সংখ্যা দশ। প্রতিদিন ফুডপ্যান্ডায় আসে অর্ধ শতাধিক অর্ডার, আর ডাইন ইনে এই সংখ্যা একশো ছাড়িয়ে যায়।
স্বপ্ন সব মানুষই দেখে। কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই সামনে আসে হাজারো প্রতিবন্ধকতা। ব্যবসার প্রথমদিকে মেসে থাকায় মেসের নিয়মানুযায়ী মাগরিবের আগে ফিরতে হতো মারজিয়াকে, অন্যথায় দিতে হতো জরিমানা। নিজে আলাদা বাসা নেয়ার পর এই সমস্যার সমাধান হয়। ২০২০ সালের জুলাইয়ে করোনাকালীন সময়ে অন্য সব ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের মতো অ্যারো স্পুনকেও ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। কিন্তু অদম্য মারজিয়া থেমে যাননি। ঘুরে দাঁড়িয়েছেন অনলাইন ফুড ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান ফুডপ্যান্ডার হাত ধরে। ফুডপ্যান্ডার রজশাহীর আঞ্চলিক ব্যবস্থাপকের সাথে কথা বলে একইসাথে রেস্টুরেন্ট এবং বাসা থেকে খাবার সরবরাহ চালিয়ে যান এই সময় থেকে। এভাবেই ফুডপ্যান্ডা প্লাটফর্মে খাবার বিক্রি করে করোনাকালে ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার পাশাপাশি চালু করতে সক্ষম হন নিজের একটি গ্রোসারি শপ এবং সামনেই পরিকল্পনা রয়েছে ব্যবসাকে আরও প্রসারিত করার।
নারী স্বাধীনতার প্রসঙ্গেই আসে নারীর উপার্জনের স্বাধীনতার কথা। আর্থিক স্বচ্ছলতা সমাজে নারীর অধিকার ও মর্যাদা আদায়ে যেমন ভূমিকা রাখে, সমাজে তার স্থানও উন্নীত করতে সহায়তা করে। বাবার অসুস্থতার কারণে নিজের খরচসহ পরিবারের সমস্ত খরচ একাই বহন করেন মারজিয়া। মারজিয়া বলেন, ‘দিনশেষে সন্তান হিসেবে বাবার কাছে হয়তো টাকা চাওয়া যায়, কিন্তু পড়াশোনা শেষে অন্য কারও উপর সম্পূর্ণ নির্ভর করলে সেখানে আত্মসম্মানের বিষয় চলে আসে।
মারজিয়ার মতো হার মানতে নারাজ উদ্যোক্তাদের মাধ্যমেই সমাজে পরিবর্তন আসবে। লক্ষ্যপূরণে অটুট মনোবল আর নিজের উপর আস্থা থাকলে নিজের ভাগ্যকে পরিবর্তন করার যোগ্যতা সকলের রয়েছে। তাই, শত প্রতিকূলতা মোকাবিলা করে নিজের স্বাধীনতা অর্জনে লড়াই নিজেকেই করতে হবে।

মার্চ ২২
০৪:৫৬ ২০২১

আরও খবর

Subcribe Youtube Channel

বিশেষ সংবাদ

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

কী বন্ধ, কী খোলা জেনে নিন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে ১৪ এপ্রিল থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকছে, বন্ধ থাকছে যানবাহনও। বিধি-নিষেধ থাকছে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলেও। সোমবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। বন্ধ থাকছে: সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সকল প্রকার পরিবহন (সড়ক, নৌ, রেল, অভ্যন্তরীণ

বিস্তারিত




এক নজরে

আমাদের সাথেই থাকুন

চাকরি

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

টিকা কার্ড নিয়ে যাতায়াত করা যাবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। তবে এ সময়ে টিকা কার্ড নিয়ে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, অতি জরুরি প্রয়োজন

বিস্তারিত